মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

‘রাজনৈতিক নিয়োগপ্রাপ্ত’ রাষ্টদূতদের পদত্যাগের নির্দেশ ট্রাম্পের

প্রকাশের সময়: ২:৫৫ অপরাহ্ণ - শনিবার | জানুয়ারি ৭, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি: প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতদের ২০ জানুয়ারির মধ্যেই পদত্যাগ করতে নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাম্প।

 তাদের প্রতি ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমি ক্ষমতা গ্রহণের আগেই পদত্যাগ করুন।’ ২০ জানুয়ারির পর কাউকে বিশেষ কোনো সুবিধা দেওয়া হবে না। এতে করে বিপাকে পড়তে যাচ্ছেন অনেক রাষ্ট্রদূত।

রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত বা বিশেষ দূতরা নতুন প্রশাসন ক্ষমতায় এলে সাধারণত দায়িত্ব পালন থেকে অব্যাহতি নেন। তবে অনেক রাষ্ট্রদূত সপরিবারে বিভিন্ন দেশে থাকেন। সন্তানদের পড়াশোনা ও জরুরি কোনো কারণে কয়েক সপ্তাহ থেকে কয়েক মাস অতিরিক্ত সময় পেয়ে থাকেন কোনো কোনো রাষ্ট্রদূত।

কিন্তু ট্রাম্পের ট্রানজিশন টিম গত ২৩ ডিসেম্বর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছে, কেউ কোনো বিশেষ সুবিধা পাবেন না। বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ১৮০টি মিশনে রাজনৈতিক বিবেচনায় কর্মরত দূতদের ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিষেকের আগেই ফিরিয়ে আনতে বলা হয়েছে। তবে পররাষ্ট্র কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালনকারীদের এর বাইরে রাখা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক মিশনগুলোতে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ কর্মকর্তারা রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগপ্রাপ্ত। ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড রাহুল ভার্মাকে ২০১৪ সালে নিয়োগ দেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এর কয়েক দিন পর ভারত সফরে আসেন ওবামা।

রাহুল ভার্মার স্কুলপড়ুয়া তিন সন্তান রয়েছে। শিক্ষাবর্ষ শেষ করাতে বিশেষ ব্যবস্থায় তাদের নয়াদিল্লি রাখতে হবে অথবা যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে নতুন করে পড়াশোনা শুরু করতে হবে। তবে ব্যক্তিগত ব্যবস্থাপনায় নয়াদিল্লি থাকলে রাহুল ভার্মা দূতাবাসের পরিচয় বহন করতে পারবেন না এবং বিশেষ কোনো সুবিধাও পাবেন না। তার ভিসা স্ট্যাটাসও পাল্টে যাবে। রাহুল ভার্মার মতো অসুবিধায় পড়তে যাচ্ছেন অনেকে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে