শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বাবা-মায়ের টানাহেঁচড়ায় ছেলে এখন কারাগারে

প্রকাশের সময়: ৮:৩০ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | জানুয়ারি ২২, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

ঝিনাইদহ: বাবার-মায়ের ডিভোর্সের কারণে ঝিনাইদহের শৈলকুপার দিগনগর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের অপূর্ব কুমার কর্মকার (১৩) ওরফে কৃষ্ণের দিন কাটছে কারাগারে। সেই সঙ্গে বাবা-মায়ের দ্বন্দ্বের কারণে অন্ধকারে যেতে বসেছে তার ভবিষ্যত।

ঝিনাইদহ সদর থানা জিডি সূত্রে জানা যায়, গোপালপুরের রতন কুমার কর্মকার ও কালিগঞ্জের অর্পনা রানির বিয়ে হয় এবং তাদের ঘর আলো করে জন্ম নেয় এক ছেলে সন্তান। নাম রাখা হয় অপূর্ব কুমার কর্মকার।

এরপর অপূর্ব কে নিয়ে অর্পনা রানি চলে যান বাবার বাড়ি। ডিভোর্স দিয়ে দেন স্বামিকে। নতুন করে বিয়ের পিঁড়িতেও বসেন তিনি।

এদিকে অপূর্বকে কৃষ্ণ নামে রেখে আসেন সিদ্ধেশ্বরী মায়ের বাড়ি অনাথ আশ্রমে। অনাথ আশ্রমে শিশু কৃষ্ণ লেখাপড়ার পাশাপাশি ভালো গান বাজনায় পারদর্শী হয়ে ওঠে। শিশু একাডেমী থেকে পুরস্কার ও পায় সে।

কিন্ত তার মা আশ্রম কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে গোপনে তাকে জোর করে সেখান থেকে নিয়ে যান এবং লুকিয়ে রাখেন। কয়েকবার এমন ঘটনার পর আশ্রম কর্তৃপক্ষ ওই নারীর বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ সদর থানায় জিডি করেন।

জিডির সূত্রে পুলিশ অপূর্বকে উদ্ধার করলে মা এবং বাবা উভয়ে তাকে হেফাজতে নেয়ার দাবি করলে পুলিশ অপূর্বকে জানুয়ারির ৭ তারিখে আদালতে পাঠায়। বর্তমানে সে যশোর শিশু কারাগারে রয়েছে। এছাড়া পুলিশে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে ওই নারীর নতুন স্বামি ছেলেটিকে মেনে নিতে নারাজ।

এদিকে বাবা রতন কুমার বিশ্বাস অভিযোগ করেছেন, অপূর্বকে তার মা ভারতে নিয়ে যেতে পারে। কেননা সে হারিয়ে যাবার পর চুয়াডাঙ্গা বর্ডারের কাছ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। তাতে অপূর্বের ভবিষৎ অন্ধকারে চলে যাবে। এছাড়া তিনি তার ছেলের ভবিষৎ চিন্তা করে নিজ হেফাজতে নিতে চান।

বাবা-মা উভয়ের দাবিতে, ছেলেকে কে পাবেন সে সিদ্ধান্ত দেবেন আদালত। তবে কত দিনে সে সিদ্ধান্ত আসবে আর কত দিন শিশু অপূর্ব কারাগারে কাটাবে সেটিই দেখার বিষয়।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে