বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

ড্রাইভারের মেয়ে নাসরিন ব্যবহার করেন আইফোন, কেনাকাটা দামী শপিংমলে

প্রকাশের সময়: ৭:০২ অপরাহ্ণ - সোমবার | জানুয়ারি ২৩, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের স্পিনার আরাফাত সানির বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন বাদী নাসরিন সুলতানা। এখন ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে ঘুরপাক খাচ্ছে কে এই নাসরিন সুলতানা? যার মামলায় গ্রেফতার ক্রিকেটার আরাফাত সানি। গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইতোমধ্যে একদিনের রিমান্ডও মঞ্জুর করেছেন আদালত।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা নাসরিন সুলতানার মোহাম্মদপুর কাঁটাসুরের বাসায় রোববার বিকেলে গিয়ে দেখা যায়, টিনশেড বাসা। আটটি ছোট কক্ষ। বাসার ভেতরে ঢুকতেই হাতের ডান পাশের শেষের দুটি কক্ষে বাবা-মা ও ছোট বোনের সঙ্গে বসবাস করেন নাসরিন সুলতানা। মামার পরিবারের সঙ্গে তারা বসবাস করেন।

কথা বলে জানা যায়, তার বাবার নাম মনিরুল ইসলাম, মা রোকসানা বেগম। চার বোনের মধ্যে নাসরিন সুলতানা তৃতীয়। নাম নাসরিন সুলতানা হলেও এলাকায় ইতি নামে পরিচিত।

এদিকে রোববার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মোহাম্মদপুর কাঁটাসুরের বাসা ছেড়ে ধানমন্ডির ফুফু নার্গিস আক্তারের বাসায় আশ্রয় নিয়েছে নাসরিনের পরিবার।

নাসরিনের মামি জানান, মোহাম্মদপুর সেন্ট্রাল কলেজে ইংরেজিতে পড়াশোনা করে নাসরিন। ছোট বোন বীথি পড়ে একাদশ শ্রেণিতে। নাসরিনের বাবা একমি কোম্পানির গাড়ি চালাতেন। চলতি মাসেই চাকরি থেকে তিনি অবসরে গেছেন। নাসরিনের মা গৃহিণী।

তিনি বলেন, ‘নানা শ্রেণির মানুষের সঙ্গে নাসরিন মেলামেশা করে। বাবা মনিরুল বিষয়টি জেনেও মুখ বুজে থাকতেন। আত্মীয় বলে কিছু বলতে পারতাম না।’

নাসরিনদের কাঁটাসুরের বাসাটি দেখতে বস্তির মতো। সেখানে আরও ৫/৬টি পরিবার ভাড়া থাকে। প্রায় আট বছর ধরে ভাড়া থাকা এক নারী চাকরিজীবী নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘আশপাশের মানুষের সঙ্গে কথা বলুন ওদের ক্যারেক্টর সম্পর্কে বুঝতে পারবেন। এ রকম আরও অনেককে মুরগি বানিয়ে টাকা বাগিয়েছে নাসরিন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাবা গাড়ি চালালেও নাসরিন ব্যবহার করে আইফোন। পোশাক কেনাকাটা করে ইয়েলো ব্র্যান্ডের দোকান থেকে। কীভাবে সম্ভব? অবৈধ পথে অর্থ উপার্জনেই চলে ওদের পরিবার।’

আরেক পুরুষ ভাড়াটিয়া নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘এই বাসায় আরাফাত সানি আসতো, তবে ফাঁদ পেতে আরাফাত সানিকে আটকানোর চেষ্টা চলছে।’

বাইরে ওষুধের দোকানদার বলেন, ‘পোশাক দেখে কেউ বুঝবে না ওদের ক্লাস (সামাজিক অবস্থান) কি? কোথা থেকে টাকা আসে। এমন অনেক ধনী পরিবারের যুবককে ফাঁসিয়ে অর্থ আদায় করেছে নাসরিনের পরিবার।’

নাসরিন সুলতানার মামাতো বোন রেহানা আক্তার। তিনি বলেন, ‘আরাফাত সানি আরও দুই আড়াই বছর আগে এখানে মাঝে মধ্যে আসতো। রুপার (নাসরিনে মেঝো বোন) মাধ্যমে পরিচয় ছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘর দেখুন, কে বিশ্বাস করবে আরাফাত সানির সঙ্গে তার (নাসরিন) ওঠাবসা আছে। সবই স্বার্থ। চলাফেরায় বোঝার উপায় নেই। এমন কাজ না করলেও পারতো নাসরিন।’

তবে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে নাসরিনের বরাত দিয়ে তার ছোট বোন বীথি জানান, ‘নাসরিনসহ পরিবারের সবাই ধানমন্ডি ফুফুর বাসায় আছেন। সারাদিন নাসরিনের ওপর ধকল গেছে। কাল (সোমবার) আপনার সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন।’

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি নাসরিন সুলতানা ক্রিকেটার আরাফাত সানির বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা করেন। ওই মামলায় আজ (রোববার) তাকে গ্রেফতার করে এবং আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করলে আদালত একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে