বুধবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

কুষ্টিয়ায় আন্তর্জাতিক নারী দিবসে পালিত

প্রকাশের সময়: ২:২৬ অপরাহ্ণ - বুধবার | মার্চ ৮, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

রিংকী, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ জহির রায়হান বলেছেন, নারী শিক্ষার প্রসার ছাড়া নারী সমাজের ক্ষমতায়নও অধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। পৃথিবীতে যা কিছু চিরকল্যাণকর অর্ধেক তার গড়েছে নারী অর্ধেক তার নর। আমাদের দেশে বর্তমানে এমন কোন সেক্টর নেই যেখানে নারী অংশগ্রহণ নেই।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। তাই অর্ধেক জনসংখ্যাকে অকার্যকর রেখে কোনো ভাবেই দেশের এগিয়ে যাওয়া ও সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। ইসলাম ধর্মে নারীকে সুরক্ষা করে নারীর অধিকার নিশ্চিত করেছে। তাই ধর্মের দোহাই দিয়ে নারীদের ঘরে বসিয়ে রাখা যাবে না। নারীর বিজয় মানবতার বিজয়। এই ইতিহাসের সঠিক প্রচার এবং প্রকাশ নারীর প্রতি শ্রদ্ধা এবং সম্মান প্রতিষ্ঠায় জরুরি।

বুধবার সকালে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস বিসিএস উইমেন নেটওয়ার্ক কুষ্টিয়ার আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশের প্রত্যন্ত জনপদ থেকে পথে প্রান্তরে নারী জাগরণের এবং সমাজ প্রগতির প্রতিটি ইতিহাস পর্যালোচনা এবং প্রচার একটু একটু করে বদলে দেবে নারীর প্রতি সমাজের রক্ষণশীলতাকে। কেবল আইন করে নারীর অধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। এ জন্য নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। পুরুষের পাশাপাশি নারীদের সকল কাজে যোগদানের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। জাতি গঠনের সকল কর্মকান্ডে নারীর সমান অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে সব শ্রেণী পেশার মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। দারিদ্র ও ক্ষুধামুক্ত দেশ গড়তে সকল কর্মকান্ডে নারীর সমান অধিকার প্রয়োজন। নারীর নিরাপত্তা, সুরক্ষা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রত্যেক পুরুষ ও নারীকে এগিয়ে আসতে হবে।

আলোচনা সভার পূর্বে দিবসটি উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে। র‌্যালীটি কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভায় এসে শেষ হয়।

বিসিএস উইমেন নেটওয়ার্কের আহবায়ক ও কুষ্টিয়ার স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক আনার কলি মাহবুবের সভাপতিত্ব বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুজিব-উল ফেরদৌস, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রট মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইবাদত হোসেন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাসিনা বেগম, জেলা সমাজসেবক অধিদপ্তরের উপপরিচালক রোখসানা পারভীন প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে বিসিএস উইমেন নেটওয়ার্কের আহবায়ক ও কুষ্টিয়ার স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক আনার কলি মাহবুব বলেন, নারীদের মানসিকতা বিকাশ ও তথ্য জানার জন্য সর্ব প্রথম শিক্ষার প্রয়োজন। তাই সমাজের সর্বস্তরে থেকে নারী শিক্ষার প্রতি এগিয়ে আসতে হবে। তবেই দেশকে উন্নয়নের চরমশিখরে পৌছে দিতে পারব। তথ্য পাওয়ার অধিকার ছাড়াও নারীর ক্ষমতায়ন, প্রশাসনে নারীদের অংশীদারিত্ব বৃদ্ধি ও পারিবারিক সহিংসতা রোধে আইনি পদক্ষেপ সম্পর্কে সচেতন করা হবে নারীদের। বাংলাদেশে নারী উন্নয়নে উলে­খযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। যা অনেক উন্নত দেশেও দেখা যায় না। যদিও নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে অর্জিত সাফল্য উন্নত বিশ্বের সমান নয়, কিন্তু এ ক্ষেত্রে আমাদের অর্জন অনেক উন্নত দেশের চেয়ে কম নয়। নারী দিবস নিয়ে যারা এখনো ভুল ধারণা পোষণ করে আছেন তারা অমত্মর থেকে শ্রদ্ধা করুন।
শ্রমজীবী নারীদের আত্মদানের এই দিনটিকে। আপনার পাশের নারীটি আপনার বন্ধু সহযোদ্ধা। আপনার সর্বোচ্চ সহযোগিতাএবং সম্মান তার প্রাপ্য; করুণা বা অশ্রদ্ধা নয়। তবেই নারী তার মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় পুরুষের শ্রদ্ধা, ভালোবাসা এবং অনুপ্রেরণা নিয়ে সমাজকে এগিয়ে নেবে।

অনুষ্ঠানটি সার্বিক উপস্থাপনা ও পরিচালনা করেন জেলা মহিলা অধিদপ্তরের প্রোগ্রাম অফিসার মর্জিনা খাতুন ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রট শ্বাসতী শিল।

পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

উপরে