রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

শিক্ষক ছাত্রের উপর মধ্যযুগীয় তান্ডব

প্রকাশের সময়: ৬:০৯ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | মার্চ ৯, ২০১৭


কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি :
নারায়ণগঞ্জঃ নারায়ণগঞ্জে মাদরাসায় ছাত্র হাফেজ আবু শহিদ (১৯) কে হাত-পা বেঁধে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে শিক্ষক রমজান আলী। এ ঘটনার পর শিক্ষক রমজান আলী তাকে একটি কক্ষে আটক রেখে পালিয়ে যায়। ৩ ঘন্টা পর মাদরাসার অন্য ছাত্ররা আবু শহিদের ঘুঙ্গানী শুনে কক্ষের দরজা খুলে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পাঠায়। ঘটনাটি ঘটেছে আড়াইহাজারে উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের শালমদী ইসলামিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসায় মঙ্গলবার। বুধবার বিকালে আহত ছাত্র শহীদের অবস্থার অবনতি ঘটলে এলাবাসীর সহযোগিতায় তাকে আড়াইহাজার এ টু জেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত ছাত্র হাফেজ আবু শহিদ উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের গহরদী এলাকার জসীমউদ্দিনের ছেলে। শিক্ষক রমজান আলী সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দী এলাকার নুরুজ্জামানের ছেলে।

আহত ছাত্র হাফেজ আবু শহিদ জানায়, অপর এক ছাত্র  রিফাতের ৭’শ টাকা তার ব্যাগে পাওয়া যাচ্ছিল না। রিফাত এ কথা তার শিক্ষক রমজান আলীকে জানালে তিনি এ টাকার জন্য তাকে সন্দেহ করে ডেকে নিয়ে আসে। পরে মাদ্রাসার অন্য দুই ছাত্র রাসেল ও আঃ রহমানের সহযোগিতায় শহিদের হাত-পা রশি দিয়ে বেঁধে কক্ষের দরজা বন্ধ করে রড ও লাঠি দিয়ে হাতে পায়ে, কোমড়ে পিটিয়ে আহত করে। এক পর্যায়ে শহীদের অবস্থার অবনতি ঘটলে শিক্ষক রমজান আলী ও তার দুই সহযোগী ছাত্র তাকে কক্ষে আটকে রেখে চলে যায়।
অভিযুক্ত শিক্ষক হাফেজ রমজান আলী ছাত্রকে ১৫টি আঘাত করার কথা স্বীকার করে জানান, ঘটনার সময় আমার মাথা ঠিক ছিল না। আমার অপরাধ হয়ে গেছে।
শালমদী ইসলাময়িা হাফিজিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম বৃহস্পতিবার এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জানান, এ ঘটনাটি স্থানীয় চেয়ারম্যান সন্ধ্যায় মিমাংসা করে দিবেন। এসময় তিনি মিডিয়ায় এ সংবাদ প্রকাশ না করতে সাংবাদিকদের অনুরোধ করেন।

আড়াইহাজার থানার ওসি শাখাওয়াত হোসেন জানান, এ ঘটনায় শিক্ষক রমজান আলীকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে