শনিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

জ্বীন তাড়াতে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল!

প্রকাশের সময়: ৭:৫৫ অপরাহ্ণ - সোমবার | মার্চ ২০, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি:  জামালপুর সদর উপজেলার রানাগাছা ইউনিয়নের দড়িহামিদপুর ডাক্তার হানিফ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ও তৎ-সংলগ্ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জিন ভুত তাড়াতে এক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০ মার্চ সোমবার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন, জামালপুর সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আফরোজা বেগম, সদর উপজেলা একাডেমীক সুপারভাইজার মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, হানিফ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জহিরুল ইসলাম সেলিম, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নানসহ স্থানীয় সুধীজন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বিদ্যালয়ে জিন ভুত বলতে কিছু নেই। তোমরা নিশ্চিত মনে বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতে আসবে। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, বানারেরপাড় ফাজিল মাদরাসার সহকারী অধ্যক্ষ ফয়জুর রহমান। উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন, রানাগাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ৭নং ওয়ার্ড শাখার সভাপতি মো: আব্দুল মান্নান।

জানা গেছে, জিনের আছরে রানী (১৪) নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রী মারা গেছে এবং আরো দুই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন এমন গুজবের ডালপালা সমগ্র এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। ভয় অজানা আতঙ্কে গত এক সপ্তাহ ধরে বিদ্যালয় দুটিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির হার হ্রাস পায়। এতে বিপাকে পড়েন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি তারা জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।

সোমবার বিদ্যালয় সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা গেছে, সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে জিনের আতঙ্ক ধীরে ধীরে কমে এসেছে। তারা বিদ্যালয়ে আসতে শুরু করেছে। ক্লাসে যোগদান করেছে। যেসব ছাত্রছাত্রীর মনে এখনো জিনের আতঙ্ক রয়ে গেছে তারা কয়েক দিনের মধ্যে নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসবে বলে প্রত্যাশা করেন শিক্ষকরা।

এদিকে বিদ্যালয়ে জিনের বিষয়টি নিয়ে একাধিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এক প্রশ্নের জবাবে হানিফ উদ্দিন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শেহেলী আক্তার এই সাংবাদিককে জানান, ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকদের মনে জিনের অজানা আতঙ্ক দূর করতে বিদ্যালয়ের চারিদিকে কবিরাজ দ্বারা তাবিজ পূঁতে রাখা হয়েছে।

তাছাড়া বিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে কি কারণে সে অসুস্থ হয়েছে তা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন। সোমবার আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কর্মীদের তদারকি করতে দেখা গেছে।

উপরে