বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

রাজশাহীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাড়ি ঘেরাও, (ভিডিও)

প্রকাশের সময়: ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | এপ্রিল ১৩, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি: রাজশাহী: রাজশাহীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘেরাও করে রেখে একজনকে আটক করেছেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বুধবার (১২ এপ্রিল) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহীর কাদিরগঞ্জ গ্রেটার রোড এলাকার একটি আটতলা ভবনের ৭ম তলায় জঙ্গি রয়েছে বলে খবর পেয়ে বাড়িটি ঘেরাও করে পুলিশ।

এ সময় বাড়ির আশপাশে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

রাজাশাহী মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) এ কে এম নাহিদুল ইসলাম বাড়িটি থেকে একজনকে আটকের খবর বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাদিরগঞ্জের গ্রেটার রোড এলাকায় বাচ্চু মিয়ার ৮তলা বাড়িটি রাত সাড়ে ১১টা থেকে ঘিরে রাখে পুলিশ।

রাত পৌনে ২টার দিকে বাড়িটির সাত তলা থেকে জঙ্গি সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়। আটককৃত ব্যক্তির ‍কাছ থেকে ১১ লাখ ৯০ হাজার টাকা, দুটি ল্যাপটপ ও কিছু কাগজপত্র জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান নাহিদুল ইসলাম।

আটক ব্যক্তি স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ জাতীয় পরিচয়পত্র না দিয়ে কিছুদিন আগে বাসাটি ভাড়া নেন বলে জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা। সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তির স্ত্রী ও সন্তানদের বাড়িওয়ালার হেফাজতে রেখে তাকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে, অভিযানে সময় ঘটনাস্থলে থাকা একটি গোয়েন্দা সংস্থার সূত্র নিশ্চিত করেছেন, আটক ব্যক্তির নাম আবির মাহমুদ (৩৮)। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায়।

তিনি দুই সন্তান এবং স্ত্রী নিয়ে কিছুদিন আগে কাদিরগঞ্জ গ্রেটার রোডের উত্তরের রেললাইনের পাশে নির্মিত বাচ্চু মিয়ার নতুন বাড়ির ৭ম তলা ভাড়া নেন। তার স্ত্রীর নাম তানজিলা বেগম। তিনি চিকিৎসক বলেও নিশ্চিত করেন ওই সূত্রটি।

অভিযান শেষে রাত পৌনে দুইটার দিকে রাজশাহী মহানগরীর উপ-পুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) এ কে এম নাহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, জঙ্গি সন্দেহে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তিনি প্রায় চার মাস ধরে ওই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তবে তিনি বাড়ি ভাড়ার কোনো ফরম পূরণ করেননি। তথ্য গোপন করেই বাড়ি ভাড়া নেন।

তিনি বলেন, আটক ব্যক্তি আউট সোর্সিংয়ের কাজ করেন বলে জানিয়েছেন। বর্তমানে তার প্রকৃত পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) সংবাদ সম্মেলন করে সব জানানো হবে বলেও জানান এই ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ওই বাড়িটি ঘিরে ফেলে। এর পর ভবনটির অন্য ফ্লোরগুলোর বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুধুমাত্র তল্লাশির জন্য সাত তলার ওই ফ্লোরের একটি ইউনিটের বিদ্যুৎ সচল রাখা হয়।

এ সময় ব্যাপক সতর্কতার সঙ্গে পুলিশ ওই ইউনিটে অভিযান চালিয়ে সন্দেহভাজন ব্যক্তি আবির মাহমুদকে আটক করে। আটকের পর তাকে অনেকটা গোপনে বাড়ির গ্যারেজে নামিয়ে একটি কালো গাড়িতে তুলে নিয়ে দ্রুত চলে যায় পুলিশ।

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে গভীর রাতে পুলিশের অভিযান শুরু হলে আশপাশের বাড়ির অধিবাসীদের মধ্যে মুহূর্তের মধ্যেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে রাস্তায় নেমে আসে। তবে অভিযান শেষ হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে।

উপরে