সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

একাদশে পরিবর্তন আনছে বাংলাদেশ?

প্রকাশের সময়: ২:৪৯ অপরাহ্ণ - সোমবার | জুন ৫, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি: 

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের দল নির্বাচন কেমন ছিল? ৩০৫ রান করতে পারা ইঙ্গিত দিচ্ছে ভালো। আবার ১৬ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখে ইংল্যান্ডের জয় পাওয়া বলছে খারাপ। একজন বোলার বাড়তি নিলে ভালো হতো কি না, সে আলোচনাও চলছে। কাল সংবাদ সম্মেলনে বিদেশি সাংবাদিকেরাই প্রথমে প্রসঙ্গটা তুললেন। বাংলাদেশ কি অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের একাদশ নিয়ে নতুন করে ভাবছে?

মাশরাফি বিন মুর্তজা জানালেন, এখন যে ধরনের উইকেটে খেলা হয়, তাতে ৫ জন বোলার নিয়ে খেললেও প্রতিপক্ষ দল রানের বন্যা বইয়ে দিতে পারে। সাম্প্রতিক ম্যাচগুলো তারই প্রমাণ। ফলে প্রথম ম্যাচে একাদশ নির্বাচন যে খুব একটা ভুল ছিল, মাশরাফি তা মনে করেন না। বরং তিনি মনে করেন, ব্যাটসম্যানদেরই আরও দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। অর্থাৎ ৩৩০-এর স্কোর তার চাই। তবে ধারণা দিলেন, একাদশে পরিবর্তন আসবে। সেটি চূড়ান্ত হবে আজ উইকেট দেখার পরই।
বাড়তি একজন বোলার নিলে ৮ ব্যাটসম্যানের লম্বা লাইনআপ ছোট হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে হয়তো বাদ পড়তে পারেন ইমরুল কায়েস। স্পিনের কার্যকারিতা একাদশে ফিরিয়ে আনতে পারে মেহেদী মিরাজকে। তবে মাশরাফি এবারের আসরের রেসিপি বলে দিলেন। বড় রান করতেই হবে।
এবারের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আসলেই বিস্মিত করেছে। আইসিসির টুর্নামেন্টে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট নতুন নয়। তবে তাতে বোলারদের জন্যও কিছু হলেও থাকে। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের উইকেটও তুলনামূলকভাবে অনেক স্পোর্টিং ছিল। এবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফি বোলারদের চরম পরীক্ষাই নিচ্ছে।
মাশরাফি সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে বললেন, ‘সারা বিশ্ব যদি দুজন বোলারকে আলাদা করা যায়, তারা হবে মিচেল স্টার্ক ও মোস্তাফিজ। তাদেরও সমস্যা হচ্ছে। এখন র‍্যাঙ্কিং শীর্ষ বোলার যে, রাবাদাও শুরুতে অনেক রান দিয়েছে। এ প্রতিযোগিতায় পেস বোলারদের কাজটা কঠিন হয়ে গেছে। আইসিসির টুর্নামেন্টে উইকেট সব সময় ভালো হয় আমরা জানি। ২০১৫ বিশ্বকাপে স্পোর্টিং উইকেট ছিল, বোলাররা ভালো বল করলে সুবিধা পাবে। ব্যাটসম্যানরা ভালো করলে সুবিধা পাবে। কিন্তু এখানে বোলারদের কাজ একটু কঠিন।’
মাশরাফি এও বললেন, ‘আমাদের বোলিং আক্রমণ অন্য অনেক দলের চেয়ে ভালো। এমন কন্ডিশনে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ম্যাচ হলেও দেখবেন, অধিকাংশ সময় কেউ ৩৩০ করছে, অন্য দল সেটা তাড়াও করছে। উইকেটে ঘাস থাকলে ভিন্ন কথা। আমরা আশা করেছিলাম ৩০৫ রানে হয়তো আটকাতে পারব। অন্তত আমার এই বিশ্বাস ছিল। ম্যাচের মাঝপথে আমরা উইকেট নিতে পারিনি। পেলে পঞ্চম বোলারের সুবিধা হতো। উইকেট পাওয়াটা অনেক বড় ব্যাপার।’
কাল একই মাঠে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। চেনা মাঠ বলে একটু স্বস্তি পাচ্ছেন মাশরাফি। সে সঙ্গে একাদশে পরিবর্তনের ইঙ্গিতও দিয়ে রেখেছেন অধিনায়ক, ‘আমরা এখন অন্তত এটা জানি কত রান নিরাপদ। এটা ব্যাটসম্যানদের সাহায্য করবে। আমরা এ নিয়ে ভেবেছি। কিন্তু একটা ব্যাপার নিশ্চিত, আমাদের রান করতে হবে। অনেক রান করতে হবে। সাধারণত ৩০০-ই ভালো স্কোর। কিন্তু উইকেট যদি এমন থাকে, আমাদের তো সেটা মাথায় রাখতেই হচ্ছে।’ আইসিসি ক্রিকেট।

উপরে