শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

মনোহরপুরে যৌতুক দিতে না পেরে সন্তানসহ গৃহবধূ ঘরছাড়া

প্রকাশের সময়: ১২:৩৯ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | জুন ২০, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:
নূর হাসান চান-রংপুর: রংপুর নগরীর মনোহরপুরে যৌতুক না পেয়ে ৪ বছরের কন্যা সন্তানসহ   গৃহবধুকে   তাড়িয়ে   দেয়ার   ঘটনা   ঘটেছে। পবিত্র রমজান মাসে এ ধরনের ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোবে   সৃর্ষ্টি   হয়েছে।   সমাধানের   লক্ষে   দফায়   দফায় শালিসি   বৈঠক   বসলেও   যৌতুক   লোভি   স্বামী   ও   তার পরিবারের যৌতুক নিতে অনড় থাকায় অবশেষে এ   ঘটনায় কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা   সুত্রে   জানাজায়,   রংপুর   নগরীর   মনোহরপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের সুলতান আলীর মেয়ে শারমিন শুকতারার সাথে একই গ্রামের আঃ ওহাব মিয়ার ছেলে   নুরজামান
ওরফে খাকুর সাথে ২০১২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারী রেজিস্ট্রি কাবিনমূলে ইসলামী শরীয়া মোতাবেক বিয়ে হয়। বিয়ের পর   সংসার   চালাকালে   তাদের   একটি   মেয়ে   সন্তান(নুরী জান্নাতী) জম্ম হয়। মেয়ে বাচ্ছ জম্ম হওয়ার পর থেকেই শুকতারার উপর শুরু হয় স্বামী,শাশুড়ির মধ্যযুগীয় কায়দায় মানুষিক   ও   শারিরিক   নির্যাতন।   শ্বশুর   আঃ   ওহাব   এর প্ররোচনায় স্বামী খাকু শুকতারাকে তার বাবার কাছ থেকে ২   লক্ষো টাকা   যৌতুক   আনতে   বলে।   কিন্তু   শুকতারার   গরীব বাবার পক্ষে এত টাকা যৌতুক দেয়া কোন ভাবেই সম্ভব ছিলনা। তাই শুকতারা যৌতুক এনে দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন যৌতুকের টাকা না দিলে যৌতুক নিয়ে অন্যত্র বিয়ে করবে বলে ভয়ভীতি ও হুমকী দিতে থাকে। তার পরেও শুকতারা বেগম তার ৪বছরের সন্তানের ভবিৎষতের কথা চিন্তা করে শত নির্যাতন সহ্য করে   সংসার   চারিয়ে   আসতে   থাকাকালীন   নির্যাতনের মাত্রা যেন আরো বেড়ে যায়। উক্ত বিষয়গুলি নিয়ে এলাকায় কয়েক দফা শালিসি বৈঠক বসলেও কোন কিনারা হয়নি। এরই   ধারাবাহিকতায়   গত   ১১জুন   স্বামীর   বাড়িতেই সাংসারিক   কাজকর্ম   করাকালে   নুরজামান   খাকু যৌতুকের দাবীতে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। এক পর্যায়   খাকু   ক্ষিপ্ত   হয়ে   লাঠিদিয়ে   শুকতারাকে   বেদম মারপিট   করে।   এসময়   তার   চিৎকারে   আশপাশের   লোকজন দৌড়ে   এসে   তাকে   উদ্ধার   করেন।   কিন্তু   পাষন্ড   স্বামী যৌতুকের   টাকা হাতে না   পেলে শুকতারার   সাথে  সংসার করবেনা   এবং গোপনে তালাক প্রদান করে অন্যত্র দ্বিতীয় বিয়ে করবে মর্মে শিশু সন্তানসহ শুকতারাকে এক কাপড়েই বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এঘটনায় গত ১২ জুন গ্রামে শালিসি বৈঠক বসলেও পাষন্ড স্বামী খাকু ও তার পরিবারের লোকজন   দাবীকৃত   যৌতুক   ছাড়া   সংসার   করবেনা   বলে সাফ জানিয়ে দেয়। ফলে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা  ব্যার্থ হলে  অবশেষে গত  শনিবার  রংপুর  কোতয়ালী থানায়  শুকতারা  বেগম  বাদী  হয়ে  একটি  এজাহার  দায়ের করেন। যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে