মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৮ | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

‘সহায়ক সরকার ছাড়া বিএনপি নির্বাচনে যাবে না’

প্রকাশের সময়: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | জুন ৩০, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি: বিএনপির নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য সাবেক এমপি শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর বলেছেন, সহায়ক সরকার ছাড়া বিএনপি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে না। আওয়ামী লীগ যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন আগামী নির্বাচন সহায়ক সরকারের অধীনেই হতে হবে। শুক্রবার দুপুরে ফরিদপুরের বোয়ালমারীর হাসামদিয়াস্থ শাহ জাফরের খামার বাড়িতে ছাত্রদল নেতাদের সাথে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নতুন বাজেটকে লুটপাটের বাজেট আখ্যা দিয়ে শাহ জাফর আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যে বাজেট পাশ করেছে তাতে দেশের মানুষ স্বস্তিতে নেই। এই বাজেটই আওয়ামী লীগের জন্য নির্বাচনকালীন সময়ে কাল হয়ে দাঁড়াবে। ‘আওয়ামী লীগের রাজনীতিই হচ্ছে লুটপাটের’ এমন মন্তব্য করে তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের মন্ত্রী, এমপিরা এখন মহা লুটপাটে ব্যস্ত রয়েছে। তারা ভালো করেই জানে নির্বাচন হলে তারা আর ক্ষমতায় আসতে পারবে না। তাই ইচ্ছে মতো লুটপাট করছে। আর লুটপাটের টাকা সুইস ব্যাংকে রাখছে।

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে শাহ মোহাম্ম আবু জাফর আরো বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে গণতন্ত্রের বুলি আওড়ালেও ভেতরে তাদের ভিন্ন রুপ। নিজেরা নির্বাচনকে সামনে রেখে সভা-সমাবেশ করে ভোট চাইছেন অথচ আমাদের কোন কিছুই করতে দেয়া হচ্ছে না। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ঈদ পুর্নমিলনী উপলক্ষে ছাত্রদল মধুখালীতে বিশাল আয়োজন করেছিল। কিন্তু পুলিশ তাদের বাধা দেয়। কয়েকজনকে গ্রেফতারও করেছে। স্থানীয় থানা পুলিশ বলেছে, কোন প্রকার জমায়েত করা হলে লাঠিপেটা করা হবে। ফলে বাধ্য হয়েই সেই সভা বাতিল করা হয়েছে। আমার বাড়িতে অনুষ্ঠানেও বোয়ালমারী পুলিশ বাধা দেবার চেষ্টা করেছে।

আগামী দিনে আন্দোলন-সংগ্রামে ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়ে শাহ জাফর বলেন, বেগম খালেদা জিয়া শীঘ্রই কঠোর আন্দোলনের ডাক দেবেন, সেই আন্দোলনে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় মাঠে থাকতে হবে। বোয়ালমারী উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাইসুল ইসলাম পলাশের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফরিদপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি বেনজির আহমেদ তাবরিজ, সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হোসেন প্রমুখ। ঈদ পুর্নমিলনী সভায় বোয়ালমারী, আলফাডাংগা ও মধুখালী উপজেলার ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা ছাড়াও স্থানীয় বিএনপির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

উপরে