মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

মা-মেয়ে উভয়ই পেলেন জিপিএ ৪

প্রকাশের সময়: ১০:৪১ পূর্বাহ্ণ - সোমবার | জুলাই ২৪, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি: মা ও মেয়ে জয়পুরহাটে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন। একই সঙ্গে তাদের পাস করার খবরে পুরো জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে আনন্দ।

জয়পুরহাট পৌর এলাকার আদর্শপাড়ার জাহাঙ্গির আলমের স্ত্রী ইসমত আরা এবং তার মেয়ে তানজিলা আফরিন এই কৃতিত্ব অর্জন করেছেন রোববার।

জয়পুরহাট জজ আদালতের পেশকার হিসাবে সেচ্ছায় অবসর নেওয়া জাহাঙ্গির আলম তার স্ত্রী এবং মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে অনুপ্রেরণা জুগিয়ছেন।

মেয়ে তানজিলা আফরিন জয়পুরহাট সরকারি কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ-৪ পেয়ে পাস করেছে। আর তার স্ত্রী ইসমত আরা জেলার পাঁচবিবি উপজেলার আয়মা জামালপুর টেকনিক্যাল কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৪ পেয়ে পাস করেছে।

জানা গেছে, অষ্টম শ্রেণি থেকে মা ইসমত তার মেয়ে তানজিলার সঙ্গে পড়াশোনা শুরু করেন। ইসমত আরা জানিয়েছেন, তার ইচ্ছা ছিল মেয়ের সাথে তিনিও শিক্ষিত হবেন। কিন্তু সমাজের লোক লজ্জার ভয় সব সময় তাকে তাড়া করে নিয়ে বেড়াতো। লজ্জায় তিনি বোরখা পরে কলেজে যেতেন। এই বয়সে লেখাপড়ায় আগ্রহী হয়ে ওঠার জন্য অনেকে তাকে কটাক্ষ করতো। তারপরও তিনি থেমে থাকেননি-এগিয়ে গেছেন।

ইসমত আরা জানান, লেখাপড়া শিখে তিনি আইনজীবী হয়ে নির্যাতিত নারীর পক্ষে আইনি লড়াই করবেন।

তিনি আরও বলেন, প্রথম যুদ্ধে জয়ী হয়েছি। সামনের যুদ্ধেও জয়ী হবো।

ইসমত আরার স্বামী জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, মাধ্যমিক পর্যন্ত তার স্ত্রী এবং মেয়ে একসঙ্গে লেখাপড়া করলেও তার স্ত্রী মাধ্যমিক পর্যন্ত অত্যন্ত গোপনে পড়াশোনা চালিয়ে যান। তবে তার মেয়ে স্বাভাবিকভাবেই পড়াশোনা চালিয়ে এসেছে। তিনিও তার স্ত্রীর সামনের দিনে আরো শিক্ষিত হবার আগ্রহকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

ইসমত আরার কলেজের শিক্ষক প্রভাষক কনক কুমার সরকার বলেন, এটি একটি ভালো খবর। ছাত্রী ইসমত সবাইকে সন্মান দিয়েই কলেজে লেখাপড়া করতেন। তার এই সাফল্যে আমরা খুশি।

উপরে