বুধবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

নিতাইগঞ্জে এলাচের দাম কেজিতে ১৫০ টাকা বেড়েছে

প্রকাশের সময়: ১২:৪৬ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | আগস্ট ১৮, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জের পাইকারি বাজারে মসলার দাম বাড়ছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে এলাচের দাম। এক সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে পণ্যটির দাম কেজিতে ১৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, ঈদুল আজহা ঘনিয়ে আসায় দেশে মসলার চাহিদা বেড়েছে। এ কারণে এলাচসহ সব ধরনের মসলাপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী।

নিতাইগঞ্জ ঘুরে দেখা যায়, বাজারে ভালো মানের প্রতি কেজি এলাচ বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৬০০ টাকায়। এক সপ্তাহ আগেও পণ্যটি দেড় হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছিল। বর্তমানে মধ্যম মানের এলাচ কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৪০০ টাকায়। ১০ দিন আগেও এ এলাচ ১ হাজার ২৫০ থেকে ১ হাজার ৩০০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এ হিসাবে পণ্যটির দাম কেজিতে প্রায় ১৫০ টাকা বেড়েছে। বাজারে এখন নিম্নমানের এলাচ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১ হাজার ৩০০ টাকায়। গত সপ্তাহের শুরুতে পণ্যটি ১ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এ হিসাবে দাম ১০০ টাকা বেড়েছে।

অন্যান্য মসলার মধ্যে লবঙ্গ বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৯৮০ থেকে ১ হাজার টাকায়। ১৫ দিন আগেও পণ্যটি ৮৫০-৯৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এ হিসাবে পণ্যটির দাম কেজিতে ৫০ থেকে ১৩০ টাকা বেড়েছে।

দারচিনি বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ২৬৫-২৭০ টাকায়। এক মাস আগেও পণ্যটি ২৪০-২৫০ টাকায় বেচাকেনা হয়েছিল। এ হিসাবে দারচিনির দাম ২০ টাকা বেড়েছে। বর্তমানে প্রতি কেজি জিরা বিক্রি হচ্ছে ৩৬০ টাকায়। এক মাসের ব্যবধানে পণ্যটির দাম ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। গত মাসের প্রথম সপ্তাহে পণ্যটি ৩৪০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

বাজারে প্রতি কেজি গোলমরিচ (কালো রঙের) বেচাকেনা হচ্ছে ৬৫০-৭০০ টাকায়। দুই সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে প্রায় ২০ টাকা। ওই সময় পণ্যটি ৬৩০-৬৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। বর্তমানে সাদা গোলমরিচ বেচাকেনা হচ্ছে কেজিপ্রতি ৯০০ টাকায়। ২০ দিন আগেও পণ্যটি ৮৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। এ হিসাবে সাদা গোলমরিচের দাম ৫০ টাকা বেড়েছে। তবে তেজপাতার দামে তেমন কোনো পরির্বতন হয়নি। বর্তমানে প্রতি কেজি তেজপাতা ১২০-১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত মসলার দামও বাড়তির দিকে। বাজারে প্রতি কেজি ধনিয়া বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৩০ টাকায়। ১০ দিনে পণ্যটির দাম প্রায় ১০ টাকা বেড়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, আসন্ন কোরবানি উপলক্ষে বাজারে এখন মসলার চাহিদা বেশি। এ কারণে পাইকারি বাজারে পণ্যের দাম বাড়ছে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যার কারণে ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। এর প্রভাবও পড়েছে বাজারে।

উপরে