শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

কক্সবাজারের খুটাখালীতে হতভাগা মোজাহেরের লাশ ৬ দিন পর দাফন

প্রকাশের সময়: ১০:২০ অপরাহ্ণ - বুধবার | আগস্ট ২৩, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও (কক্সবাজার) প্রতিনিধি: চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার মস্তকবিহীন হতভাগা মোজাহের মিয়া (৩৫) এর জানাযা বুধবার (২৩ আগষ্ট) রাত ৯ টার সময় ইউনিয়নের নয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে শেষে স্থানীয় কবর স্থানে দাফন করা হয়েছে। গত ১৮ আগষ্ট দুপুরে মস্তকবিহীন লাশটি উদ্ধারের পর পরিচয় নিশ্চিত না হওয়ায় শনিবার সকাল ১১টার দিকে কক্সবাজার পৌরসভার অধীন আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের মাধ্যমে মোজাহের মিয়াকে ‘বেওয়ারিশ’ হিসেবে দাফন করা হয়। প্রশাসনিক প্রক্রিয়া শেষে বুধবার তার লাশ উত্তোলন করা হয়েছে।
গত রোববার (২০ আগষ্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী ও এসআই আলমগীর সহ পুলিশের একটিদল স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে খুটাখালীর বালুরচর এলাকার ধান ক্ষেত থেকে নিহতের বিচ্ছিন্ন মাথাটি উদ্ধার করেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও থানার এসআই মো.আলমগীর বলেন, গত ১৮ আগষ্ট দুপুরে মস্তকবিহীন লাশটি উদ্ধারের পর পরিচয় নিশ্চিত না হওয়ায় শনিবার সকাল ১১টার দিকে কক্সবাজার পৌরসভার অধীন আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের মাধ্যমে মোজাহের মিয়াকে ‘বেওয়ারিশ’ হিসেবে দাফন করা হয়। তিনি জানান, গত রোববার দুপুরে খুটাখালীর বালুরচর এলাকার স্থানীয় পথচারীরা একটি পলিথিন মোড়ানো বস্তু দেখে তাদের খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থলের ৫০০ গজ অদুরে ধানক্ষেত থেকে বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধার করা করা হয়।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.বখতিয়ার উদ্দিন বলেন, এলাকাবাসীর খবরের ভিক্তিতে ঘটনার তিন দিন পর গত রোববার দুপরে ঘটনাস্থলের অদুরে ধান ক্ষেত থেকে বিচ্ছিন্ন মাথাটি উদ্ধার করা হয়। তিনি বলেন, শনিবার রাতে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাওয়া ছবিতে পরনের শার্ট, প্যান্ট, পকেটে থাকা টুপি, পায়ের সেন্ডেল দেখে পরিচয় নিশ্চিত করেছেন স্ত্রী সাবেকুন নাহার।
নিহত মোজার মিয়া (৩৫) বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাসিয়াখালীর রঙ্গারঝিরি এলাকার নুর মোহাম্মদের ছেলে। পেশায় তিনি রাবার ব্যবসায়ী। তার ৪ জন সন্তান রয়েছে।
স্ত্রী সাবেকুন নাহার জানিয়েছেন, তার স্বামী রাবার ব্যবসার টাকা তুলতে বৃহস্পতিবার বাড়ী থেকে বের হন। ব্যবসার পাশাপাশি তিনি তাবলীগের চিল্লায়ও যেতেন। এ কারণে পকেটে সব সময় টুপি রাখতেন। তার কোন শত্রুও ছিলনা।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন বলেন, এলাকাবাসীর খবরের ভিক্তিতে গলাকাটা লাশ ও ঘটনার তিন দিন পর মাথা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মস্তকটি ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশক্রমে লাশটি উত্তোলনের পর মস্তকটি একই সাথে দাফন করা হবে। প্রশাসনিক প্রক্রিয়া শেষে বুধবার লাশ উত্তোলন করে দাফন করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা বের করার চেষ্টা চলছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে