বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

পানির উৎস ও জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন ও পাচার বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশের সময়: ৩:১৮ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৭
কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:
লামা(বান্দরবান)প্রতিনিধি:  বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার বিভিন্ন ঝিরি ঝর্ণা ও খাল পাহাড় কেটে  অবৈধভাবে অবাধে পাথর উত্তোলন ও পাচার বন্ধের দাবীতে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে স্থানীয় জনসাধারণ। সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় আলীকদম উপজেলা পরিষদের সম্মুখে “ পানির উৎস,জীব বৈচিত্র্য ও প্রাকৃতিক সম্পদ বাঁচাও” স্লোগানকে সামনে রেখে  মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আলীকদম উপজেলার সর্বস্তরের জনাসাধারণের ব্যানারে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ঝিরি, ছড়া, খাল ও পাহাড় খোদাই করে পাথর উত্তোলন বন্ধের দাবিতে প্রায় শহস্রাধিক বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহন করে। এসময় মানববন্ধনকারীরা বিভিন্ন লিখা সম্বলিত প্লেকার্ড ব্যবহার করে।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, আলীকদম সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন, কুরুকপাতা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ক্রাতপুং মুরুং, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মো: নাছির উদ্দিন, আলীকদম উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক দুঃড়িমং মার্মা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সমর রঞ্জন বড়ুয়া, যুবলীগ নেতা শুভ রঞ্জন বড়ুয়া, আলীকদম মুরুং কল্যান সংসদের সভাপতি মেনডন মুরুং, মুরুং কল্যান ছাত্রাবাস এর পরিচালক ইয়ংলক মুরুং, পানবাজার ত্রিপুরা পাড়ার কারবারি আগষ্টিন ত্রিপুরা, মুরুং স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি সিংওয়াই মুরুং ও সাধারণ সম্পাদক চংঅং মুরুং প্রমুখ।
মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ একটি সংঘবদ্ধ প্রভাবশালী সিন্ডিকেট আলীকদমের কুরুকপাতা ইউনিয়নের তৈন খাল ও দোছড়ি এলাকা থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন ও পাচার করে যাচ্ছে। এ কারণে প্রকৃতির ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। অবাধে পাথর উত্তোলন অচিরেই বন্ধ না করলে পানির উৎস বন্ধ ও জীব বৈচিত্র্য ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই অভিলম্ভে এই অবৈধ পাথর উত্তোলন ও পাচার বন্ধের দাবী জানিয়ে পাথর পাচারকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জোর দাবী জানানো হয়।
প্রসংগত বান্দরবান জেলার আলীকদম  উপজেলায় প্রভাবশালী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন ও পাচার অব্যাহত রয়েছে। সারা বছর জুড়েই পাহাড় কেটে এবং ঝিরি ও ঝর্ণা খুঁড়ে লক্ষ লক্ষ ঘনফুট পাথর পাচার করা হচ্ছে। পাচারকারীদের পক্ষে প্রশাসনিক ও ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক সমর্থন থাকায় নিরাপদে জেলার বিভিন্ন সড়ক দিয়ে দিনরাত পাথর পাচার করার অভিযোগ উঠেছে। আলীকদম উপজেলার মাতামুহুরী রিজার্ভের তুলাতলী, বুজি ও ধুমচি খাল, চৈক্ষ্যং এর বাঘের ঝিরি, আলীকদম থানচি সড়কের আশেপাশের ঝিরি, পাহাড় ও ঝর্ণা খুড়ে লক্ষ লক্ষ ঘনফুট পাথর পাচারের জন্য স্তুপ করে রাখা হয়েছে। এই বিষয়ে গত ২৮ আগস্ট ২০১৭ইং তারিখে আলীকদম উপজেলার ৪টি মৌজার হেডম্যানরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ দিলে বিষয়ে ঐদিন বিকালে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেড ও নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নায়িরুজ্জামান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে প্রায় ৪হাজার ২শত ঘনফুট অবৈধভাবে উত্তোলিত পাথর জব্দ করে। এসময় অবৈধভাবে নদী হতে বালি পাচারের দায়ে একটি ট্রাকও জব্দ করে। তারপরেও প্রশাসনের বাঁধাকে উপেক্ষা করে হাজার হাজার ঘনফুট পাথর অবৈধভাবে পাচার করে আসছে একটি চক্র। তাই নিরাপদ পানির উৎস ও জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করে  এই অবৈধ পাথর পাচাররোধকল্পে রাজপথে নামে স্থানীয় জনসাধারণ।
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে