মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

জামাই ও শ্বাশুরীকে পিটিয়ে আহত,স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা লুট

প্রকাশের সময়: ৮:০২ অপরাহ্ণ - বুধবার | সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:বউকে  ঈদের দুই দিন আগে বাবার বাড়ীতে না পাঠিয়ে  ঈদের দুই দিন পরে পাঠানোর কারণে শ্বাশুরীকে আটকিয়ে মারপিট করে স্বর্নাংকার লুট ও জামাইকে পিটিয়ে টাকা লুটের  ঘটনা ঘটার খবর পাওয়া গেছে।  ঘটিনাটি ঘটিছে  মঙ্গলবার হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার ১১নং বাঘাসুড়া ইউনিয়নে  ৪নং রামচন্দ্রপুর ( চাইরা) গ্রামে। ওই ঘটনায় মাধবপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। জানা যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার  চাপরতলা ইউনিয়নের  চাপরতলা গ্রামের মৃত ছুর রহমানের ছেলের সাথে  হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার ১১নং বাঘাসুড়া ইউনিয়নের ০৪নং ওয়ার্ডের  রামচন্দ্র পুর ( চাইরা) গ্রামের  রফিক মিয়ার মেয়ে মর্জিনা বেগমের সাথে প্রায় ২ বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয়। বিবাহের পর তাদের গর্ভে  ইয়াছিন নামে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। যার বয়স আনুমানিক ১০ মাস। রুবেল ঢাকায়  একটি হোটেল কর্মচারী। এ বছর কুরবানী ঈদের দুই দিন আগে রুবেলের স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুড় বাড়ীতে যাওয়ার জন্য দাওয়াত করে তার শ্বশুড়।  বিধাতা বিমুখ। ঈদের আগে ছুটি পাইনি রুবেল।ঈদের দুই দিন পর রুবেলের মা রুবেলের স্ত্রী মর্জিনা বেগম ও তার ছেলে ইয়াছিন মিয়াকে নিয়ে রুবেলের শ্বশুর বাড়ীতে বেড়াতে যায়। দুই দিন পরে যাওয়ার কারণে ওই দিন রাত ১ টা বিশ মিনিটে  রুবেলের শ্বশুর  রফিক মিয়া, শ্বাশুরী  কুলসুমা বেগম সম্মন্ধী  জিয়াউর রহমান সহ শ্বশুর বাড়ীর লোকজন মিলে রুবেলের মা জফুরা বেগমকে  খালি ঘরে  হাত পেছনে বেঁধে মুখে কসটেপ লাগিয়ে বেধম মারপিট করে তার গলে ও কানে থাকা দুই ভরি ওজনের স্বর্ণাংলকার  ছিনিয়ে নিয়ে তাকে তালা বদ্ধ করে রাখে। পরদিন প্রতিবেশীর মোবাইল ফোনে খবর পেয়ে রুবেল তার বোন জামাই শামছুল হক শাকির মিয়া  ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত হয়। বেলা চার ঘটিকার সময় এ নিয়ে ওই গ্রামের সর্দার-মাতাব্বর নিয়ে  সালিশ বসে। রুবেলের শ্বশুর বাড়ীর লোকজন সালিশের রায় অমান্য করে তাদের সামনেই জামাই রুবেল মিয়া ও তার বোন জামাই  শামছুল হকের উপরে অর্তকিত হামলা চালিয়ে মারপিট শুরু করে রুবেলের পকেটে থাকা নগদ বার হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। উপস্থিত লোকজন মুমুর্য অবস্থায় জামাই রুবেল, তার বোন জামাই  শামছুল হক ও মা  জফুরা বেগমকে  উদ্ধার করে নাসিরনগর হাসপাতালে  এনে ভর্তি করে। এ বিষয়ে  মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে রুবেলের  পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে