শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

মির্জাপুরে প্রতিমা গড়ার কাজ শেষ, চলছে রঙতুলির কাজ

প্রকাশের সময়: ৭:২৩ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

মোঃ রায়হান সরকার রবিন, মির্জাপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি: দেবী দুর্গা আসছেন অশুভ শক্তি বিনাশ করতে। পঞ্জিকামতে, সনাতনধর্মী দুর্গা উৎসবের মহাষষ্ঠী ২৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার এবং বিজয়া দশমী ৩০ সেপ্টেম্বর শনিবার।

হিন্দু শ্রাস্ত্র মতে, অসুরকে ধ্বংস করার জন্য শরৎ কালের যুগে যুগে পৃথিবীতে দেবী দূর্গার আগমন ঘটে। এবারের মা দূর্গা দেবীর আগমন নৌকায় চড়ে, আর যাবেন ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে। এদিকে মির্জাপুরে প্রতিমা গড়ার কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। গহনা পরানো হলেই ঢাক-ঢোল সানাই বাজিয়ে দেবী দূর্গা উঠবে বেদিতে।

শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মির্জাপুরে সর্বাধিক ২২১ টি মন্ডপে শারদীয়া দূর্গা পূজার প্রতিমা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মৃৎ শিল্পি ও পূজারীরা। উপজেলার মহেড়া, জুমর্কি, ফতেপুর, বানাইল, আজগানা, ওয়ার্শি, ভাদগ্রাম, ভাওড়া, বহুরিয়া, গোড়াই, লতিফপুর, আজগানা, তরফপুর ও বাঁশতৈল ইউনিয়নের পুজা মন্ডপগুলোতে চলছে উৎসবের আমেজ। এ বছর সবচেয়ে বেশী প্রতিমা তৈরী করেছে পৌরসভা।

প্রতিটি পূজা মন্ডপের জন্য তৈরি করা হচ্ছে দূর্গা, লক্ষী, স্বরস্বতী, কার্ত্তিক, গনেশ, অসুর, সিংহ, মহিষ, হাঁস, পেচাঁ ও সর্পসহ প্রায় ১২টি প্রতিমা।

উপজেলা পূজা কমিটির সভাপতি অতুল পোদ্দার ও হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের সভাপতি উত্তম কুমার সেন লালু বলেন, মির্জাপুরে শারদীয় দূর্গোৎসবে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ধর্ম যার যার হলেও উৎসব সবার স্লোগানে মির্জাপুর হিন্দু মুসলিম সবাই আনন্দ উপভোগ করেন।

পুলিশ সুত্র জানান, আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ দেয়া হবে পূজা মন্ডপগুলোতে। টাঙ্গাইল জেলা তথা মির্জাপুর উপজেলার সর্ব বৃহৎ পুজা মন্ডপ রনদা নাট মন্দির এবং রনদা প্রসাদ সাহার নিজ বাড়িতে পুজা দেখতে আসবেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, মন্ত্রী, এমপি ও প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল। ভিআইপিদের নিরাপত্তার জন্য সকল প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার শিক্ষা পরিচালক প্রতিভা মুৎসুদ্দি ও হাসপাতালের পরিচালক ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার জানিয়েছেন, রনদা প্রসাদ সাহার পুজা মন্ডপে তিন দিন ব্যাপি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে ভারতেশ্বরী হোমস, নার্সিং স্কুল ও বিএসসি নার্সিং কলেজ, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ এবং সাহাপাড়ার শিল্পীরা মনোজ্ঞ নাচ, গান ও আলতি দেবেন।

মির্জাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মিজানুল হক মিজান বলেন, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে প্রতিটি মন্ডপে মুল পুজা শুরু হবে। মির্জাপুর উপজেলায় প্রতিটি মন্ডপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ, আনসার ও কমিউনিটি পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন বলেন, পৌরসভা এবং ১৪ ইউনিয়নে ২২১টি মন্ডপে শারদীয়া দূর্গাপূজা উপলক্ষে আইনশৃংখলা সুন্দর ও স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ ও আনসার মোতায়েনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রশাসনের মনিটরিং টিম ও মোবাইল টিম সার্বক্ষনিক কাজ করবে।

উপরে