বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

রসিক নির্বাচন: গণসংযোগে মাঠে নেমেছেন প্রার্থীরা

প্রকাশের সময়: ৯:৩০ অপরাহ্ণ - শনিবার | সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৭

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

কানিজ সেতারা, রংপুর প্রতিনিধি : নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ডিসেম্বরের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে- রংপুর সিটি কর্পোরেশন (রসিক) নির্বাচন। ইতোমধ্যে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের ব্যক্তি ইমেজ নিয়ে প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন। ভোটারদের চায়ের চুমুক আর প্রার্থীদের মন ভুলানো প্রতিশ্রুতিতে সরগরম হয়ে উঠেছে আসন্ন সিটি নির্বাচন। তবে ভোট সংগ্রহ করতে ঈদ-পুঁজোসহ বিভিন্ন উৎসবকেই পুঁজি করছেন প্রার্থীরা। দলীয় ব্যানার ফেস্টুনসহ কেউ কেউ ঝুলিয়েছেন নিজের রঙিন ছবিও।
এবারের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রীয় হাইকমান্ড নেতাদের সঙ্গে সখ্য জুড়ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির একাধিক প্রার্থী। নিজেদের ভোটের পাল্লা ভারী করতে দল প্রধানদের নিয়ে এসে করছেন- পরিচিতি সমাবেশ। তবে মাঠের অবস্থানে এখন পর্যন্ত দেখা মিলছেনা বামপন্থী দলগুলোর।  অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড চোখে পরার মত হওয়ায় জাতীয় পার্টির সাথে মুল প্রতিদ্বন্দিতা হবে বলে ধারনা করছেন সাধারন ভোটাররা। আবার যেন তেনো প্রার্থী দিলে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির দুর্গে হানা দিতে পারে স্বতন্ত্র শক্তি এমন আশঙ্কা বিশিষ্ঠজনদের।
অন্যদিকে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশায় এখন পর্যন্ত প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু। আরো যারা দৌড়ঝাঁপ করছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য চৌধুরী খালেকুজ্জামান, মহানগর সভাপতি সাফিউর রহমান সফি, আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল ইসলাম মিলন, রাশেক রহমান ও ড. জয়নুল আবেদীন।
কারেন্টনিউজের প্রতিবেদকের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বলেন, “সরকারের পক্ষ থেকে আমাকে সিটি কর্পোরেশন উন্নয়নের যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেগুলো সব করা হয়েছে। কিন্তু কিছু অংশ উন্নয়নের কাজ এখনো বাকি আছে। সেগুলো বাস্তবায়ন করতে সরকার আবারো আমাকেই মনোনিত করবেন । বিগত সময় আমি কোন দুর্নীতি ও সন্ত্রাসী করিনি, তাই এবারেও জনগনকে সাথে নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার আশাবাদী। ”
নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পাওয়ার আশায় গণসংযোগে জোড় প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্্রীয় কমিটির উপদেষ্টাম-লীর সদস্য চৌধুরী খালেকুজ্জামান। দলীয় মনোয়ন পাওয়ার বিষয়ে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি  সাফিউর রহমান সফি। তিনি বলেন, “গত নির্বাচনে প্রার্থী ছিলাম। এবারেও মনোনয়ন পাওয়ার আশায় আছি।”
ভোটারদের মন জয় করতে মহানগরীর মহল্লায় এখন মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিলন প্রচার চালাচ্ছেন। পিছিয়ে নেই সম্ভাব্য প্রার্থী দলের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদক রাশেক রহমানও। সাবেক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নুল আবেদীনও ভোটের প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন।
দলের পক্ষ হতে ৫ মাস আগেই চুরান্ত প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান মেয়র পদে মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফার নাম ঘোষনা করলেও প্রচারণায় মাঠে রয়েছেন ৩জন। জয়ের আশা নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতায় রয়েছেন জাপা’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র আব্দুর রউফ মানিক।
ব্যানার ফেস্টুন সাটিয়ে ভোটারদের দৃষ্টি কারছেন মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি কাওসার জামান বাবলা। দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় হাইকমান্ডের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন তিনিও।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে