মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

প্রধানমন্ত্রীর হাতে শীতল পাটি

প্রকাশের সময়: ৪:৩৮ অপরাহ্ণ - সোমবার | জানুয়ারি ২২, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকমডটবিডি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে শীতল পাটি তুলে দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও স্বাস্থ্য সচিব ফয়েজ আহম্মদ।

জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থার (ইউনেস্কো) স্বীকৃতি পাওয়ায় শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ শীতল পাটি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হয়।

দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল আলম এ তথ্য জানান।

এন এম জিয়াউল আলম বলেন, বাংলাদেশে ঐতিহ্যবাহী শীতল পাটি ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার সদস্য, সচিবগণকে শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে এই শীতল পাটি তুলে দেওয়া হয়েছে।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পায় বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটি।

দক্ষিণ কোরিয়ার জেজু দ্বীপে ইউনেস্কোর ইন্টারগভর্নমেন্টাল কমিটি ফর দ্য সেফগার্ডিং অব দ্য ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজের ১২তম অধিবেশনে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শীতল পাটিকে বিশ্বের নির্বস্তুক সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য (ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ অব হিউম্যানিটি) হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

২০১৬ সালে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় জাতীয় জাদুঘর সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটিকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্য ইউনেস্কোর কাছে প্রস্তাব দেওয়া হয়। বাংলাদেশের জামদানি, বাউল গান, মঙ্গল শোভাযাত্রাও ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পেয়েছে।

বাংলাদেশের আবহমান সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের এক অনন্য নিদর্শন শীতল পাটি। এই লোকশিল্পটি মুর্তা গাছের বেতী থেকে বিশেষ বুননকৌশলে শিল্পরূপ ধারণ করে। সিলেট, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, বরিশাল, ঝালকাঠি, কুমিল্লা, ঢাকা, ফরিদপুর, কিশোরগঞ্জ, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, টাঙ্গাইল, নেত্রকোনায় এ গাছ প্রচুর পাওয়া যায়। তবে শীতল পাটি বুননশিল্পীদের বেশিরভাগই বৃহত্তর সিলেটের বালাগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ এবং সিলেট জেলার নিচু এলাকায় বসবাস করেন।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে