বুধবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৮ | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

চেষ্টা করুন যদি আপনি এফবিআই স্পেশাল এজেন্ট টেস্টে পাশ করতে চান!

প্রকাশের সময়: ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | মার্চ ২৫, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

এফবিআই স্পেশাল এজেন্ট কাজ পাওয়াটা সবচেয়ে কঠিন কাজের মধ্যে একটি। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ৫% এর কম আবেদনকারীকে গ্রহণ করা হয়। যদি প্রার্থীরা কয়েকটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারেন তাহলে বুঝতে পারবেন তার মধ্যে একটি সৃজনশীল চিন্তা এবং যুক্তিভিত্তিক দক্ষতা বিকাশের একটি সহজাত সম্ভাব্য আছে। আপনি কি তাঁদের মধ্যে একজন হতে চান?

আমরা আপনাদেরকে একটি বিশেষ এজেন্টের একজন মনে করার জন্য সেই সুযোগটা দিতে চাচ্ছি এই পাঁচটি কেস সমাধান করার মধ্য দিয়ে। আপনি প্রস্তুত তো?

১. বাচ্চাটির মা কে?

এটা প্রথম টেস্ট। ছবিটি ভালোভাবে লক্ষ্য করুন।

একটি রুমের মধ্যে দুইজন মহিলা একে অপরের দিকে মুখোমুখি হয়ে বসে আছে এবং একটি ছোট ছেলে মেঝের মধ্যে খেলা করছে।

প্রশ্নঃ আপনার কি মনে হয়, বাচ্চাটির প্রকৃত মা কে?

২. দুটি বড়ি

একজন সিরিয়াল কিলার লোকদেরকে অপহরণ করে এবং প্রতিজনকেই দুটি বড়ির মধ্যে একটি নেওয়ার জন্য বলা হতো, যার মধ্যে একটি বিষাক্ত এবং অপরটি নিরাপদ। অপহৃত ব্যক্তি একটি বড়ি এবং সিরিয়াল কিলার আরেকটি বড়ি নিয়ে খেয়ে ফেলে। একই সময়ে অপহৃত ব্যক্তিটি মারা যায় এবং  প্রতিবারই সিরিয়াল কিলার বেঁচে যায়।

প্রশ্নঃ কিলার কিভাবে সবসময় নিরাপদ বড়ি পেয়ে থাকে?

৩. পানীয়

একজন ছেলে আর একজন মেয়ে ডিনার করার জন্য রেস্টুরেন্টে গেছে। যখন তাঁরা প্রধান খাবারের জন্য অপেক্ষা করছিল, তখন মেয়েটি বরফের সাথে ৫টি পানীয় অর্ডার করলেন, কারণ সেইসময় অনেক গরম ছিল। ছেলেটি যখন মাত্র একটি পান করলেন সেইসময়ে মেয়েটি সেখান থেকে একসাথে ৪টি পান করলেন। কিছুক্ষণ পর সেই ছেলেটি অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং সেখানেই মারা যায়। ডাক্তার বলেছে যে, সব পানীয় বিষাক্ত ছিল।

প্রশ্নঃ সেই মেয়েটি এখনো কিভাবে জীবিত আছে যেখানে ছেলেটি মারা গেছে। আরেকবার মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

৪. ক্যাসেট

একটি দৃশ্য কল্পনা করে দেখুন। একজন মানুষের মৃত দেহ পাওয়া গেছে, তার হাতে একটি পিস্তল আছে এবং তার পাশে একটি ক্যাসেট রেকর্ডার আছে। গোয়েন্দা ‘প্লে’ বাটনে চাপ দিয়ে ম্যাসেজটি শুনেছে, সেখানে বলা হচ্ছে, ‘আমি এই জীবন নিয়ে খুবই বিরক্ত এবং আমি আমার দুঃখ কষ্ট শেষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি’ এবং তারপরই গুলির আওয়াজ শুনা গিয়েছে। গোয়ান্দা কেন যেন এটিকে একটি আত্মহত্যার ঘটনা বলে মনে করছেন না।

প্রশ্নঃ গোয়ান্দা কেন এটিকে একটি হত্যা ছিল বলে মনে করছেন?

৫. ক্রিসমাস রহস্য

ক্রিসমাস ছুটির সময় একজন গোয়েন্দা দায়িত্বরত অবস্থায় ছিলেন এবং ২৫শে ডিসেম্বরের সকালে তিনি একটি কল পেয়ে চলে যান। তিনি ডোরবেল বাজান এবং এক মিনিট পর একজন ঘুমন্ত বাড়ির মালিক দরজা খুলেন। গোয়ান্দা বললেন, ‘ আপনার প্রতিবেশী বলছে যে, গতকাল ক্রিসমাসের আগের দিন তিনি আপনার বাড়িতে পার্টির জন্য আসেন এবং যখন তিনি এখানে ছিলেন, তখন আপনি তার বাড়িতে গিয়ে কিছু মূল্যবান জিনিস চুরি করে নিয়ে আসেন’।

বাড়ির মালিক উত্তর দিয়েছেন, ‘এটি সত্য নয়। আমাদের পরিবার ক্রিসমাস পার্টি করার জন্য আমাদের বন্ধুদের বাসায় গিয়েছিলাম। তেমন সময় ছিল না দেখে আমাদের ক্রিসমাস ট্রি কোনমতে সাজিয়েছি’।

গোয়ান্দা বলছে, ‘চিন্তা করবেন না। আমার কাছে স্পষ্ট যে আপনার প্রতিবেশী মিথ্যা কথা বলছে’।

প্রশ্নঃ গোয়ান্দা কিভাবে জানতে পারলো?

উত্তরঃ এবার আপনার উত্তরগুলো মিলিয়ে নিন

 

© depositphotos

১.

বাম দিকে বসা মহিলাটি বাচ্চাটির মা। তিনি এমনভাবে পা রেখে বসেছেন, যেন তিনি বাচ্চার দিকে সহজেই যেতে পারে।

– এই অবস্থানটি তার সন্তানকে রক্ষা করার জন্য একজন মায়ের সহজাত প্রবৃতিকে প্রতিফলিত করে।

– বামের মহিলাটির অঙ্গভঙ্গি প্রতিরক্ষামূলক, সামান্য সামনের দিকে বেঁকে বসেছে।

– ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে তাদের মায়েদের মুখোমুখি হওয়া স্বাভাবিক, যখন তারা খেলতে থাকে বা কোন ধরণের কার্যকলাপ করে থাকে।

২.

দুটি বুড়ির নিরাপদ। বিষটি অপহৃত ব্যক্তির পানির গ্লাসে ছিল।

৩.

বিষ বরফের মধ্যে ছিল। যেহেতু মেয়েটি অতি দ্রুত তার পানীয় পান করছিল তাই বরফ গলে যাওয়ার সময় ছিল না। ছেলেটি ধীরে ধীরে পান করছিল দেখে বিষ তার পানীয়তে গলে মিশে গিয়েছিল।

৪.

লোকটি যদি আত্মহত্যা করে থাকে, তাহলে সে কিভাবে প্রথম থেকে আবার গুটিয়ে রাখতে পারবে?

৫.

ক্রিসমাস ট্রির লাইট প্লাগে লাগানো ছিল না এবং একটি বাল্ব অনুপস্থিত ছিল, যা ছাড়া কাজ করা সম্ভব ছিল না। এটি গোয়েন্দার কাছে পরিষ্কার যে, বাড়ির মালিক সত্য কথা বলছে। সে আসলেই তাড়াহুড়ার মধ্যে গাছটি সাজিয়েছে, এমন কি লাইট কাজ করছে কিনা সেটার দিকে নজর দেওয়া হয়নি।

আপনারা কি সব পরীক্ষার উত্তর দিতে পেরেছেন? আপনার রেজাল্ট মন্তব্যে জানাবেন।

ব্রাইট সাইড থেকে অনুদিত।

উপরে