সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

তিতাসে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রতি সদস্যদের অনাস্থা

প্রকাশের সময়: ৭:৫৯ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | এপ্রিল ২০, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

কুমিল্লা উত্তর প্রতিনিধি: কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ৮নং জিয়ারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান মো. আলী আশরাফ কে অনাস্থা দিয়েছে ওই ইউনিয়নের ৯জন সদস্য। ১৯ মে ১৮ইং বৃহস্পতিবার কুমিল্লা জেলা প্রশাসক বরাবর ৯জন ইউপি সদস্য স্বাক্ষরিত অনাস্থা পত্র দাখিল করেন।অনাস্থা পত্রের লিখিত বক্তব্যে জানা যায় গত বছরের ১৮ মে প্রথম সভার পর অদ্যবধি কোন সভা করেনি এবং ইউনিয়নের পরিষদ ভবন থাকা স্বতেও চেয়ারম্যান রহস্যজনক কারনে পরিষদে না বসে দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর বাজারস্থ তাহার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে পরিষদের সকল দাপ্তরিক কাজ করে আসছে। যা পরিষদের সদস্যগনের অজান্তে চেয়ারম্যানের একক ক্ষমতা বলে এবং সদস্যদের অবমূল্যায়ন করে পরিষদের কর্মকান্ড চালাচ্ছেন। এবিষয়ে সকল সদস্যদের সাথে সমন্বয় করে কাজ করার জন্য একাধিকবার অনুরোধ করলেও চেয়ারম্যান আলী আশরাফ তা তোয়াক্কা করেনি। চলতি বছরের ১১ মাচর্ কুমিল্লা জেলা প্রশাসক বরাবর আলী আশ্রাফ চেয়ারম্যানের অনিয়ম ও দুর্নীতির ফিরিস্তি লিখিত আকারে তুলে ধরে সকল সদস্যের পক্ষে ১নং ওয়ার্ডের সদস্য শাহ আলম মেম্বার স্বাক্ষরিত লিখিত আবেদন করেছে। ওই আবেদনে উল্লেখ করা হয় চেয়ারম্যানের অনিয়মের বিরুদ্ধে কোন সদস্য কথা বললে তাহার ছেলে আবু বক্করের মাধ্যমে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে হয়রানী করার হুমকি দেওয়া হয় এবং ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জনসাধারণকে যে সকল সেবা প্রদানের কথা রয়েছে তা না দিয়ে উল্টো হয়রানী করা হয়। আবেদনে আরো উল্লেখ করেন পরিষদের সকল সদস্যগনের সম্মতিক্রমে প্যানেল চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার কথা থাকলেও সদস্যদের সাথে কোন প্রকার আলোচনা না করেই তাহার একক ক্ষমতা বলে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হাসিনা মেম্বারকে প্যানেল চেয়ারম্যান নির্বাচিত করে নেয়।অনাস্থা পত্রে স্বাক্ষরিত সদস্যরা হলেন মো. মিজানুর রহমান উজ্জল, শাহ আলম,মো. দেলোয়ার হোসেন,মো. জাকির হোসেন, জাবেদ মিয়া, শফিক,মমতাজ,হান্নান ও রিপা আক্তার। উক্ত বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয়সহ সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করেন ভূক্ত ভোগী সদস্যগন ও এলাকাবাসী।

উপরে