বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বাঁশখালীতে দুই সন্তানের জনক মিন্টু কর্তৃক দুই শিশু ছাত্রী ধর্ষণের শিকার!

প্রকাশের সময়: ১২:৪৮ অপরাহ্ণ - রবিবার | এপ্রিল ২২, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

মোহাম্মদ ছৈয়দুল আলম, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার শেখেরখীল ইউনিয়নে টেকপাড়ায় ২ সন্তানের জনক মাছ ব্যবসায়ী আব্দুল হাকিম মিন্টু (৩০) প্রতিবেশি ৩য় শ্রেণিতে পড়ুয়া এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে পালিয়েছে।
ধষির্তা আহত ছাত্রীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ‘চমেক’ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ঘটনায় শিশুটির পিতা মোস্তফা আলী বাদি হয়ে ২০ এপ্রিল রাতে বাঁশখালী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
অপরদিকে পুকুরিয়া ইউনিয়নের ধলতলী এলাকায় সপ্তম শ্রেণি-পড়ৃয়া স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে পুকুরিয়ার ঘটনাটি পুলিশ তদন্ত করছে।
মামলা ও স্থানীয় জানা যায়, শেখেরখীল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের টেকপাড়ায় শামসুল আলমের ছেলে মাছ ব্যবসায়ী আব্দুল হাকিম মিন্টু গত ১৮ এপ্রিল দুপুর আড়াইটার দিকে মাদ্রাসা ছাত্রীর পিতা লবণ ব্যবসায়ী মোস্তফা আলী বাড়ির সন্নিকটে আটচালা ঘরে মুখ চেপে ধরে ৩য় শ্রেণির ছাত্রী (১০)-কে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।
ছাত্রীটি তার মাকে জানালে তাৎক্ষণিকভাবে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি দেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে ভর্তি দেয়া হয়েছে।
এ ঘটনায় ছাত্রীটির পিতা মোস্তফা বাদি হয়ে দুই সন্তানের জনক আব্দুল হাকিম প্রকাশ মিন্টু (৩০)-কে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২০০৩ সনের (সংশোধিত) ৯(১) ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।
অপরদিকে পুকুরিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নুরুচ্ছফার ছেলে ভ্যানগাড়ি চালক দুই সন্তানের জনক সফিকুর রহমান (৩২) গত ১৬ এপ্রিল বিকাল ৪ টার দিকে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় ছাত্রীটির পিতা আবুল হোসেন বাঁশখালী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। রামদাশহাট তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ খবর পেয়ে পুকুরিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
শেখেরখীল মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা সম্পর্কে আবুল হোসেন ভুট্টু বলেন, দুই সন্তান জনক আব্দুল হাকিম মিন্টু ঘটনার সাথে জড়িত বলে প্রাথমিকভাবে স্থানীয়রা চিহ্নিত করেছেন। তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। মামলা দায়েরের পর হুমকি দিচ্ছে বলে শুনেছি।
বাঁশখালী থানার ওসি (তদন্ত) শরিফুল ইসলাম বলেন, শেখেরখীল মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে। পুকুরিয়ার ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে