শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

দেশীয় হস্তশিল্প ও কারুশিল্পের প্রান্তিক উৎপাদকদের অধিক মুনাফার প্ল্যাটফর্ম ‘দর্পণ’

প্রকাশের সময়: ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | এপ্রিল ২৯, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি: 
এম হাবিবুল্লাহ হাবিব : কারুশিল্পের সৃজনশীল কারিগরদের জন্য নির্মিত বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল মার্কেটপ্লেস ‘দর্পণ’। সৃজনশীল শিল্পী/উদ্যোক্তারা ‘দপর্ণ’ এর ওয়েবসাইটে বিনামূল্যে একটি অনলাইনভিত্তিক দোকান খুলতে পারছেন এবং তাদের পণ্যের ছবি ও মূল্য নির্ধারণ করে বিক্রয়ের জন্য তুলে ধরতে পারছেন। ক্রেতা অনলাইনে অর্ডার করে কিনতে পারছেন। ‘দর্পণ’ -এর লক্ষ্য টেক্সটাইল ভিত্তিক হস্তশিল্প, জামদানী ও মসলিন, নকশীকাঁথা, তাঁত শিল্প, কাঠের কাজ, পাথরসজ্জা, চিত্রকলা, গয়না, চামড়াজাত সামগ্রী এবং গৃহস্থালী সামগ্রীর কারিগরদের অনলাইন ভিত্তিক একটি প্লাটফর্মে নিয়ে আসা এবং তাদের ব্যবসা প্রসারে সহায়তা করা। স্বচ্ছতা ভিত্তিক একটি সংগঠনের নাম ‘দর্পণ’। তারা পণ্যের সেই মূল্যই নির্ধারণ করে যেটা কারুশিল্পীদের দ্বারা নির্ধারিত। নিজেদের মার্কেটপ্লেসটি পরিচালনার জন্য সুনির্দিষ্ট হারে কমিশন চার্জ করে ‘দর্পণ’ এবং সেই বিবেচনাতেই বিক্রেতা পণ্যের চূড়ান্তমূল্য নির্ধারণ করে থাকে।

দেশীয় হস্তশিল্প ও কারুশিল্পের উৎপাদন এবং সরবরাহের ক্ষেত্রে অন্যতম জনপ্রিয় একটি দেশ বাংলাদেশ। বর্তমানে প্রায় ৪০ লক্ষ স্বাবলম্বী ব্যক্তি¡ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে জড়িত রয়েছে সৃজনশীল এই শিল্পক্ষেত্রের সাথে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত, এই ক্ষেত্রটি নিয়ে অদ্যাবধি তেমন একটা কাজ হয়নি সামগ্রিকভাবে। বিভিন্ন প্রতিকূলতার সম্মুক্ষীন এই শিল্প ক্ষেত্রটি আজ মৃতপ্রায়। তার উপর মধ্যসত্ত¡ভোগীদের দৌরাত্ম্যে এ পেশার সাথে সংশ্লিষ্ট প্রান্তিক উৎপাদকরা বর্তমানে প্রায় নিষ্ক্রিয়। যার ফলে ক্রেতা এবং উদ্যোক্তা উভয়ই আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তবে নিভু নিভু আশার আলো কিন্তু এখনও নিভে নাই। কারুশিল্পের সকল প্রান্তিক উদ্যোক্তাদের সফলতা অর্জনের নিশ্চয়তায় ‘দর্পণ’ একটি নির্ভরতার নাম। দেশীয় কারুশিল্প বা কুটির শিল্পের জাকজমকময় পুরোন ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ‘দর্পণ’ কাজ করছে অন্যতম এক প্ল্যাটফর্ম হিসেবে যেখানে দেশীয় কারুশিল্পের প্রান্তিক উদ্যোক্তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। তাদের পেশাগত লক্ষ্য অর্জনের পাশাপাশি গ্রাহক সাধারণের চাহিদা পূরণে তথা সর্বাধুনিক সেবা নিশ্চিত করতে একনিষ্ঠভাবে কাজ করছে ‘দর্পণ’।

মূলত ঐতিহ্যের দেশীয় হস্তশিল্প ও কারুশিল্পের সৃজনশীল উদ্যোক্তাদের সমর্থন করাই ‘দর্পণ’-এর মূল লক্ষ্য। ‘দর্পণ’ অর্থাৎ ‘আয়না’, যাতে প্রতিফলিত হয় প্রতিঃছবি। ‘দর্পণ’ মূল্যবোধের প্রতি অঙ্গীকারাবদ্ধ এবং তাদের দৃঢ় বিশ^াস হচ্ছে ভাল কোন কিছুর জন্য নিজেদেরকে অন্যতম একটি মাধ্যম হিসেবে সমাজে তুলে ধরা। ধীরে ধীরে দর্পণের মূল্যবোধ দৃশ্যমান হচ্ছে বিক্রেতাÑকেন্দ্রিক মডেলের মাধ্যমে। কারুশিল্পের প্রান্তিক উদ্যোক্তাদের প্রতিঃছবি হয়ে কাজ করা এবং সৃজনশীল উদ্যোক্তাদের ব্যবসা প্রসারের মাধ্যমে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই ‘দর্পণ’-এর উদ্দেশ্য। সর্বপরি স্বচ্ছতাপূর্ণ ভূমিকা পালন এবং সততার একনিষ্ঠ অবলম্বন করাই দর্পণের অঙ্গীকার।

সৃজনশীল কারিগরগণ ‘দর্পণ’ -এর সাথে কাজ করবে এই কারণে যে, ‘দর্পণ’ নামক প্ল্যাটফর্মটিতে সৃজনশীল কারিগর তথা প্রান্তিক উদ্যোক্তাগণের অনলাইনভিত্তিক একটি করে নিজস্ব দোকান থাকবে যেটাকে তারা নিজের ইচ্ছে মত সাজাতে পারবেন। নিজের পণ্যের মূল্য নিজেরাই নির্ধারণ করতে পারবেন। উদ্যোক্তাদের উদ্যোক্তা হবার পেছনের গল্প তারা ‘দর্পণ’ নামক প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে সমাজের সকলের কাছে তুলে ধরতে পারবেন।

উদ্যোক্তাদের সকল পণ্যের প্রমোশন/ মার্কেটিং করবে দর্পণ। ‘দর্পণ’ -এর মাধ্যমে তারা তাদের উৎপাদিত পণ্য দেশের যে কোন স্থানে সরবরাহ করতে পারবে। প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার দ্বারা উদ্যোক্তাদের পণ্যের যথাযথ ছবি তুলে সেগুলো প্রমোট করা সহ তাদের ব্যবসা প্রসারের জন্য বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান হতে ঋণ পেতেও অন্যতম সহায়ক ভূমিকা রাখবে ‘দর্পণ’। ফলে দেশীয় কারুশিল্পের প্রান্তিক উদ্যোক্তাদের সামাজিক অবস্থান হবে দৃঢ়। কারণ এই কারুশিল্পীরাই দর্পণের আস্থা এবং ভিত্তি। সর্বপরি, পিছিয়ে পড়া দেশীয় শিল্পের কারিগরদের উন্নয়নমূলক অগ্রযাত্রার বাহন হতে চলেছে “দর্পণ”।

 

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে