মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বাংলাদেশি টুনটুনির লাইভে এসে কাজ দেখেন! (ভিডিওসহ)

প্রকাশের সময়: ১২:৩০ অপরাহ্ণ - সোমবার | মে ৭, ২০১৮


বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর ।

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

জানেন, কোন পাঁচটি জিনিসের জন্য যৌনতা ছাড়তে রাজি পুরুষরা?

জীবনের আর পাঁচটা চাহিদার মতোই যৌন চাহিদাও একটি। অনেকেই সে ইচ্ছে গোপন রাখার চেষ্টা করেন ঠিকই, তবে বয়সের সঙ্গে সঙ্গে সে চাহিদা পূরণও জরুরি হয়ে ওঠে স্বাভাবিক নিয়মেই। কিন্তু জানেন কি, এমন পাঁচটি কারণ রয়েছে যার জন্য সঙ্গমের মতো ইচ্ছেও হাসি মুখে ত্যাগ করতে রাজি হয়ে যেতে পারেন পুরুষরা! নির্দ্বিধায় যৌনজীবনকে আলবিদা জানাতে পারেন! না, কল্পনা নয়। একটি সমীক্ষা করে জানা গিয়েছে পুরুষদের এমনই পাঁচ ইচ্ছের কথা, যার জন্য তাঁরা যৌনজীবনের লোভ ত্যাগ করতে পারেন।

প্রচুর অর্থ: প্রচুর বললেও ভুল বলা হবে। বলা ভাল অফুরন্ত অর্থ। হ্যাঁ, অনেক পুরুষই জানিয়েছেন, তাঁদের হাতে অফুরন্ত অর্থ এলে সঙ্গমকে টাটা-বাই বাই বলতে দ্বিধা করবেন না তাঁরা। কিন্তু এত অর্থ নিয়ে করবেনটা কী? তাঁরা বলছেন, অর্থের চিন্তা না থাকলে আর কর্মস্থানে যাওয়ার ব্যাপারও নেই। ফলে ব্যাগ গুছিয়ে দুনিয়া ভ্রমণে বেরিয়ে পড়া যাবে অনায়াসেই। আর সেই সুন্দর জীবনের বিনিময়ে যৌনজীবনকে বিদায় জানানো আর এমনকী কঠিন কাজ।

খাবার-দাবার: ‘চার্লি অ্যান্ড চকোলেট ফ্যাক্টরি’ ছবিটি দেখেছেন? খাদ্যরসিক পুরুষদের বক্তব্য, ওরকম একটা জায়গায় তাঁদের রেখে দিলে সঙ্গমের কথা মাথাতেও আসবে না। কারণ খাবারের থেকে ‘সেক্সি’ আর কীই বা হতে পারে! তাই অনেক পুরুষই রোজ ভাল ভাল খাবার পেলে যৌনজীবনকে বিদায় জানাতে রাজি।

ঘুম: ছুটির দিনে অধিকাংশ পুরুষদের প্রিয় কাজ কোনটি? এ প্রশ্নের জবাব বেশি ভাবার প্রয়োজন নেই। সহজ উত্তর, ঘুম। নিশ্চিন্তে ঘুমোতে পারলে তাঁদের আর কিছু প্রয়োজনই হয় না। দিনে কত ঘণ্টা ঘুমের বিনিময়ে সঙ্গম ত্যাগ করতে রাজি তাঁরা? অন্তত ১২ ঘণ্টা। চমকানোর কারণ নেই। অনেকের বাড়িতে এ দৃশ্য নিশ্চয়ই খুব চেনা।

জিন: অনেকের কাছে আবার সঙ্গম ছাড়ার দাম বেশ চড়া। এক ব্যক্তি জানাচ্ছেন আলাদিনের জিনের মতো কোনও বস্তু খুঁজে পেলে তবেই তিনি মিলনের ইচ্ছা ত্যাগ করবেন। সেটি ছাড়া জীবনে আর যা যা চাইবেন, সব তাঁকে এনে দেবে সেই জিনি। বাড়াবাড়ি হয়ে গেল না?

সত্যিকারের ভালবাসা: এমন উত্তর দিয়েছেন অনেকেই। তাঁদের মতে মিলনের চেয়েও জীবনে সুখী হতে বেশি প্রয়োজন সত্যিকারের ভালবাসা। যে ভালবাসা পাওয়ার সৌভাগ্য সকলের হয় না। আর তা পেলে বিনা সঙ্গমে সারাজীবন কাটিয়ে দেওয়াটা এমন কোনও বড় ব্যাপার নয়।

কথায় বলে নারীর মন বোঝা ভীষণ কঠিন! কিন্তু এ প্রতিবেদন পড়লে মহিলারাও হকচকিয়ে যেতে পারেন যে আসলে তাঁর প্রিয় মানুষটি তাঁর থেকে ঠিক কী চাইছেন! কি, তাইতো?

 

 

 

 

উপরে