বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

দুর্ঘটনার কবলে ডঃ খন্দকার মোশারফের গাড়ী বহর নিহত১ , আহত-২০

প্রকাশের সময়: ৭:৫০ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | জুন ১৯, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

জাকির হোসেন হাজারী, কুমিল্লা উত্তর প্রতিনিধি: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের গাড়ীর বহরে বেপরোয়া গতিতে আসা বাসের সংঘর্ষে এক ছাত্রদল কর্মী নিহত। আহত হয়েছেন পৌর ছাত্রদলের সভাপতিসহ অন্তত ২৫ জন নেতা কর্মী। নিহত ছাত্রদলকর্মী জুয়েল প্রধান রায়হান (২০) দাউদকান্দি পৌরসভার দোনারচর গ্রামের ছাদেক মিয়া প্রধানের ছেলে।
জানাযায়, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও নির্বাহী কমিটির সদস্য ডঃ খন্দকার মারুফ হোসেন মঙ্গলবার দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে উপজেলার মোঃ পুর ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানের ছেলের বৌ-ভাত অনুষ্টানে যোগদান করার কথা। দুপুরে নেতাকর্মীদের নিয়ে এজন্য ২০/২৫টি গাড়ীর বহর নিয়ে ওই সামাজিক অনুষ্টানে যাওয়ার পথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের আমিরাবাদ ইউটার্ন নেয়ার সময় ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস বেপরোয়া গতিতে বহরের তিনটি মাইক্রোবাস ও দাড়িয়ে থাকে দু’টি প্রাইভেটকারসহ অপর একটি বাসের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে বহরের একটি মাইক্রোবাসের পেছনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায় । প্রাইভেটকার দু’িট সড়কের পাশে খাদে ছিটকে পড়ে। ঘটনাস্থলেই পৌর ছাত্রদলকর্মী রায়হান নিহত হয়। আহত হন অন্তত ২০ নেতাকর্মী। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। আহতদের মধ্যে আশিক সরকার (২০), হৃদয় (২৪) ও ইমদাদুলকে ভর্তি করা হয় এবং পৌর ছাত্রদল সভাপতি আল আমিন(৩১), ছাত্রদলকর্মী মাজারুল (৩৫), ইমরান (২৫), দেলোয়ার হোসেন (৩৫), রিফাত আহম্মেদ (২৬),সাকিব (২৩), জাহিদ(২৩) ও নাহিদ( ১৯) কে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। দূর্ঘটনার খবর শুনে দাউদকান্দি তিতাস ও মেঘনা উপজেলার নেতাকর্মীদের ঢল নামে গৌরীপুর হাসপাতাল প্রঙ্গনে। বহওে থাকা কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসেম, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা যুবদলের সভাপতি ভিপি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, স্যারের (ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন) গাড়ীর পিছনে আমরা ছিলাম। অল্পের জন্য আল্লাহ স্যারকে দূর্ঘটনার হাত থেকে বাচিয়েছেন। এদিকে দূর্ঘটনার পর ওই সামাজিক অনুষ্টানের যাত্রা বাতিল করে আহতদের দেখতে দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান সাবেক সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। সেখান থেকে দূর্ঘটনায় নিহত রায়হানের বাড়ী দোনারচর যান।
খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমি ভালো আছি। দুর্ঘটনায় আমার পৌর ছাত্রদলের সভাপতিসহ আহত ৮ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। যে ছাত্রদল নেতা মারা গেছেন, আমি এখন দাউদকান্দি দোনারচর ওর বাড়ীতে রয়েছি।
দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, খবর পেয়ে দ্রুত দূর্ঘটনাস্থলে যাই এবং দূর্ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরন করি। মহাসড়কে যেন কোন যানজট বা প্রতিবন্ধকতা না হয় সে জন্য আমিসহ কয়েকজন অফিসার দূর্ঘটনাস্থলে রয়েছি।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে