শনিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

নেক উদ্দেশ্য হাসিলে শয়তানের কুমন্ত্রণামুক্ত থাকার আমল

প্রকাশের সময়: ৭:৩০ পূর্বাহ্ণ - সোমবার | জুন ২৫, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমান। এটা আল্লাহ তাআলার ঘোষণা। অনেক সময় মানুষ শয়তানের কুমন্ত্রণায় নেক উদ্দেশ্য হাসিলে ব্যর্থ হয়। তাই শয়তানের কুমন্ত্রণামুক্ত থেকে নেক উদ্দেশ্য হাসিলে আমল করা জরুরি।

আল-মুক্বসিতু (اَلْمُقْسِطُ) আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের একটি। মুমিন বান্দা নিয়মিত এ গুণবাচক নামের আমল করলে শয়তানের যাবতীয় কুমন্ত্রণা থেকে মুক্ত থাকবে। পূরণ হবে মনের নেক উদ্দেশ্য।

প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আল্লাহ তাআলার ৯৯টি গুণবাচক নাম আছে। যে ব্যক্তি এ গুণবাচক নামগুলোর জিকির (আমল) করবে; সে জান্নাতে যাবে।’

আল্লাহর গুণবাচক নাম (اَلْمُقْسِطُ) ‘আল-মুক্বসিতু’-এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হলো-
amal
উচ্চারণ : ‘আল-মুক্বসিতু’
অর্থ : ‘ন্যায়বিচারক’

ফজিলত ও আমল
– যে ব্যক্তি প্রতিদিন ১০০ বার মহান আল্লাহ তাআলার এ গুণবাচক নাম (اَلْمُقْسِطُ) ‘আল-মুক্বসিতু’ পাঠ করবে, সে শয়তানের কুমন্ত্রণা ও অমঙ্গল থেকে মুক্ত থাকবে।

– আর যে ব্যক্তি প্রতিদিন ৭০০ বার মহান আল্লাহ তাআলার এ গুণবাচক নাম (اَلْمُقْسِطُ) ‘আল-মুক্বসিতু’ পাঠ করবে, সে ব্যক্তির নেক উদ্দেশ্য পূরণ হবে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তাঁর এ সুন্দর ও ছোট্ট গুণবাচক নাম (اَلْمُقْسِطُ) ‘আল-মুক্বসিতু’-এর আমল করার মাধ্যমে শয়তানের যাবতীয় কুমন্ত্রণা ও অমঙ্গল থেকে মুক্ত থাকার পাশাপাশি মনের নেক উদ্দেশ্য হাসিল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

উপরে