শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বাঁশখালীতে প্রভাবশালী প্রতিবেশী কর্তৃক অবরুদ্ধ হয়ে আছে অসহায় পরিবার!

প্রকাশের সময়: ৫:৫২ অপরাহ্ণ - বুধবার | জুলাই ৪, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি:

মোহাম্মদ ছৈয়দুল আলম, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের বাঁশখালীর পুঁইছড়ি গ্রামের বাসিন্দা আব্বাছ উদ্দিন। ধানের ব্যবসা করে কোন রকমে সংসার জীবন অতিবাহিত করে আসছে সে। বিগত কয়েক বছর পূর্বে তার মা মারা যায়। বর্তমানে সত্তোর্দ্ধো বৃদ্ধ পিতা, তার সৎ মা, ৭ ভাই-বোন, স্ত্রী, ২ ছেলে ও ৩ কন্যাকে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তার পৈত্রিক বসতভিটায় বেড়া, টিনের ছাউনী ও বাঁশ দিয়ে তৈরিকৃত একটি ঘরে স্বপরিবারে বসবাস করে আসছে আব্বাছ উদ্দিন। কিন্তু এরই মধ্যে আব্বাছ উদ্দিনের ওই বসত ভিটির উপর কুনজর লাগে স্থানীয় এক প্রভাবশালীর।

সূত্র জানা যায়, বিগত কয়েক বছর পূর্বে আব্বাস উদ্দিনের মায়ের মৃত্যু হলে তার বৃদ্ধ পিতা মোজাহের আহম্মদ ফকির উক্ত বসত ভিটির ৮ গন্ডা জায়গা তার নামে গত ২০১৫ সালের ২৩ এপ্রিল হেবা ঘোষণা দলিলমূলে রেজিষ্ট্রি প্রদান করে। তথায় পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছে আব্বাস উদ্দিন। এদিকে দারিদ্রতার কষাঘাতে পড়ে আব্বাস উদ্দিনের পিতা মোজাহের আহমদ ফকির বিগত কিছুদিন পূর্বে ছৈয়দ আহমদের নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকা গ্রহণ করে জায়গা বন্ধক রেখে।

ওই সময় তার পিতা মোজাহের আহমদ ফকিরের কাছ থেকে ৩শ টাকা মূল্যের ৩টি খালি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর আদায় করে নেয় ছৈয়দ আহমদ। পরে ওই ষ্ট্যাম্প গুলোতে গত ২০১৬ সালের ১৪ মার্চ সুকৌশলে জায়গা বিক্রয়ের বায়না নামা দলিল সৃজন করে নেয় ছৈয়দ আহমদ।

এদিকে বিগত কয়েক দিনের ভারী বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে বেড়া ও টিনের চালা এবং বাঁশ দিয়ে নির্মিত আব্বাস উদ্দিনের ঘরটি সম্পূর্ণ রূপে ভেঙে পড়ে। পরে সে ওই বসতঘর পুনরায় সংস্কার করতে চাইলে তাকে বাঁধা প্রদান করে ছৈয়দ আহমদ। এতে আব্বাস উদ্দিন বাঁধা দেওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করিলে তখন উক্ত বসতভিটি বিক্রির বায়না নামা দলিলটি প্রদর্শন করে ছৈয়দ আহমদ। এই নিয়ে ঝগড়াঝাটির সৃষ্টি হয় তাদের মধ্যে।কিন্তু ইতিপূর্বে মোজাহের আহমদ ফকির ওই জায়গা তার পুত্র আব্বাস উদ্দিনকে হেবা ঘোষণামূলে রেজিষ্ট্রি প্রদান করার কথা জেনেও ছৈয়দ আহমদ উক্ত বায়না নামা দলিলমূলে ওই বসত ভিটি দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়াও আব্বাস উদ্দিনের পরিবারকে নানান ভাবে হুমকি ধমকি ও মারধর করার অভিযোগও রয়েছে। মঙ্গলবার (৩ জুলাই) বিকেলে স্থানীয় সাংবাদিকদের উপরোক্ত কথা গুলো বলে আর্তনাদে ভেঙে পড়েন আব্বাস উদ্দিনের পরিবার। বর্তমানে ভাঙা ওই ঘরটিতে পরিবার নিয়ে অসহায় ভাবে কোন রকমে দিন কাটাচ্ছে সে।

এদিকে প্রভাবশালী এই প্রতিবেশীর হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন অসহায় ওই পরিবারটি।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে