বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

নির্বাচন বানচাল করার ক্ষমতা নেই বিএনপির : বাণিজ্যমন্ত্রী 

প্রকাশের সময়: ৮:১৯ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | আগস্ট ৩, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি


পুষ্পেন্দু মজুমদার, ভোলা: বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মেনে নিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের এখন ঘরে ফিরে যাওয়া সঠিক হবে বলে আমি মনে করছি। তাদের এমন কিছু করা ঠিক হবে না , যা দেশের ক্ষতি হবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, আগামী নির্বাচন বানচাল করার ক্ষমতা বা মারমুখি অবস্থান বিএনপির নেই। আগামী নির্বাচন এই নির্বাচন কমিশনই পরিচালনা করবেন। বিএনপির কোন অরাজকতা মানুষ মেনে নিবে না। মন্ত্রী বিএনপির ক্ষমতা আমলের নির্যাতনের কথা তুলে ধরে বলেন, সেই সব দিনের ক্ষত মানুষ ভুলে যায় নি।

ভোলায় শুক্রবার সকালে গাজীপুর রোডস্থ নিজ বাস ভবন চত্বরে ইউনিয়ন কমিটি ও বিভিন্ন সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় ও সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় মন্ত্রী ২০০১ সালের নির্বাচনের কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, ওই নির্বাচনে ভোলাসহ দেশের অনেক স্থানেই মানুষ ভোট দিতে পারে নি। কেন্দ্র দখল করে নেয় বিএনপি। এমন কি নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বাড়ি ঘরে থাকতে পারেন নি। এখন ওদের মুখে অন্য কথা মানায় না। আগামী নির্বাচনে তারা মারামারি করবেন,হুমকী ধামকী দিবেন ওই পরিস্থিতি এখন আর নেই। বিএনপির উচিত হবে, নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নেয়া।

বাণিজ্যমন্ত্রী নিজ দলের নেতাকর্মীদের নির্বাচনের জন্য জোর প্রস্তুতি নেয়াসহ কেন্দ্র এলাকা কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন। ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটির নেতারা ওই সব কেন্দ্র কমিটি পরিচালনা করবেন বলেও জানান। এ সময় মন্ত্রী ভোলার উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, ভোলার মানুষ এখন আর নদী ভাঙ্গনের ভয়ে নেই। এখানে একের পর এক বিদ্যুৎ প্লান্ট হচ্ছে। বাণিজ্যমস্ত্রী বলেন তার স্বপ্ন ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মান করা। ওই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য কাজ করছেন।

এ সময় মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহসভাপতি দোস্তমাহামুদ, জেলা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি হামিদুল হক বাহালুল, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, অপর যুগ্ম সম্পাদক এনামুল হক আরজু, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা পরিষদ সদস্য অধ্যক্ষ সাফিয়া বেগম, জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি মোঃ আবু তাহের, জেলা শ্রমিক লীগ সম্পাদক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর শাহে আলম, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জসিম উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুছ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান বশির অহমেদ, ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন মনসুর ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মাতাব্বর, জেলা আওয়ামী লীগ দফতর সম্পাদক মোঃ ইলিয়াসসহ স্থানীয় ১৩ ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সম্পাদক ও জেলার সহযোগি কমিটির শীর্ষ নেতারা।

উপরে