সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

ছিনতাই ও ডাকাতি প্রতিরোধে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ঝোপঝাড় পরিস্কার অভিযান

প্রকাশের সময়: ৫:৫১ অপরাহ্ণ - শুক্রবার | আগস্ট ২৪, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

মোঃ ইব্রাহীম, মাদারীপুর: ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ডাকাতি ও ছিনতাই প্রতিরোধে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার রাঘদী থেকে ডোমড়াকান্দি পর্যন্ত ১কিলোমিটার রাস্তাার পাশের ঝোপঝাড় পরিস্কার অভিযান করেছে পুলিশ ও এলাকার ৪টি সেচ্ছাসেবী ক্লাবের সদস্যরা। আজ শুক্রবার থেকে অভিযান উদ্বোধন করা হয়। এর পরে ডাকাত প্রবন আরো এলাকার ঝোপঝাড় পরিস্কার করবে বলে জানিয়েছে কানুড়িয়া পল­ী মঙ্গল ক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেন।

বরিশাল মহাসড়কের রাঘদী থেকে দিগনগর পর্যন্ত প্রায় (৫) কিঃ মিঃ রাস্তার অভিযান চলবে সপ্ত্হ ব্যাপী। আগামী রবিবার সকাল ৮ টায় অভিযান শুরু হবে।

ডাকতির স্পট বলে খ্যাত মাদারীপুর ও গোপালগঞ্জ এ দুই জেলার সীমান্তবর্তী ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মুকসুদপর উপজেলাধীন রাঘদী, ডোমরা কান্দি ও রথখোলা নামক স্থানে বছরে অন্তত ৭/৮টি ডকাতি ও ছিনতাই সংঘটিত হয়ে থাকে। ২১ আগষ্ট রাত ১০ দিকে ডোমরাকান্দিতে ইজিবাইক চালক বিজয় শেখকে (১৪) হত্যা করে ইজিবাইক ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী দুই ডাকাতকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে। ৭ আগষ্ট রাঘদীতে রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে ইজিবাইক আটকিয়ে যাত্রীদের নিকট থেকে স্বর্নালংকারসহ যাবতীয় মালামাল নিয়ে যায়।এসময় এলাকাবাসী এক ডাকাতকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে। ১৩ মে দুপুরে রাঘদী ব্রিজের নিকট ব্র্যাকের নারী কর্মীকে মারধোর লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী এক ছিনতাইকারীকে ধরে গনধোলাইয়ের পুলিশে সোপার্দ করে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দিগনগর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মোহাম্মদ আলী, রাঘদী ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন,কানুরিয়া পল্লী মঙ্গল ক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেনসহ, এএসআই ইসলাম সরদার ক্লাবের সদস্যবৃন্দ ও এলাকাবাসী।

কানুড়িয়া পল্লী মঙ্গল ক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেন জানান, ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের উপজেলার রাঘদী থেকে ডোমড়াকান্দি পর্যন্ত ১ কিলোমিটার সড়কের দুই পাশে ঝোপঝাড় থাকায় প্রায় এখানে ডাকাতি, ছিনতাই ও প্রান হানির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা জাতীয় দৈনিক বিভিন্ন পত্রিকায় উদ্বুদ্ধ হই। ফলে আমরা পল্লী মঙ্গল ক্লাবের পক্ষ থেকে শুক্রবার থেকে এ উদ্যোগ নিয়ে ঝোপঝাড় পরিস্কার করার কাজ শুরু করেছি। আমাদের দেখে স্থানীয় চরপ্রসন্নদী ঐক্য পরিষদসহ তিনটি ক্লাবের সদস্যরা এগিয়ে এসে এ কাজে যোগ দেয়। আমরা উক্ত স্থানগুলিতে ডাকাতি ও ছিনতাই ঠেকাতে প্রয়োজনে পাহরার ব্যবস্থা করবো। মুকসুদপুর থানার ওসি মোস্তফা কামাল পাশা জানান, স্থানীয় যুবকদের এ জনস্বার্থ কাজকে স্বাগত জানাই। এজন্য আমরাও তাদেরকে সহযোগিতা দিচ্ছি।

সিন্দিয়াঘাট পুলিশ ফাঁড়ির এস আই আলমগীর হোসেন জানান, কানুড়িয়া পল্লী মঙ্গল ক্লাব যে উদ্যোগ নিয়েছে তা প্রসংশনীয়। আমরাও তাদের সাথে থেকে অভিযান সফলের চেষ্টা করছি।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে