মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

গর্ভকালীন স্বাস্থ্যসেবা বা চেকআপ

প্রকাশের সময়: ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | আগস্ট ২৬, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

গর্ভাবস্থায় কমপক্ষে ৪ বার স্বাস্থ্য পরীক্ষা বা চেকআপের জন্য স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে হবে মা ও গর্ভস্থ শিশুর অবস্থা পর্যবেক্ষণ করার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গর্ভবতী মাকে গর্ভকালীন সময়ে কমপক্ষে ৪ বার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চেকআপের জন্য যাওয়ার সুপারিশ করেছে, এর মাধ্যমে ৬টি সেবা নিশ্চিত করা হয়। তবে মনে রাখা দরকার যে, গর্ভবতী মায়ের অবস্থা ও প্রয়োজন অনুযায়ী ৪ বার এর বেশি চেকআপে যাওয়ার প্রয়োজন হতে পারে।

বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক নির্ধারিত গর্ভকালীন স্বাস্থ্যসেবা/চেকআপের সময়সূচি

  • ১মঃ ৪র্থ মাসের মধ্যে (১৬ সপ্তাহ)
  • ২য়ঃ ৬ষ্ঠ মাসে (২৪ সপ্তাহ)
  • ৩য়ঃ ৮ম মাসে (৩২ সপ্তাহ)
  • ৪র্থঃ ৯ম মাসে (৩৬ সপ্তাহ)

গর্ভকালীন সেবা/চেকআপে যা যা করা হয়

1)গর্ভকালীন ইতিহাস নেয়া হয়
2) শারীরিক পরীক্ষা করা
3) স্রাব পরীক্ষা
4) চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা
5) প্রতিরোধক বাবস্থাপনা
6) মাকে পরামর্শ প্রদান করা
7) স্বাস্থ্য শিক্ষা

গর্ভকালীন ইতিহাস গ্রহণ বর্তমান গর্ভাবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ কী না জানতে মায়ের সাধারণ তথ্য নেয়া হয়:

  • নাম ও বয়স, ঠিকানা, স্বামীর নাম ও পেশা।
  • বর্তমান গর্ভের তথ্যঃ শেষ মাসিকের তারিখ, বর্তমানে কোনো সমস্যা।
  • পূর্ববর্তী প্রসব সংক্রান্ত ইতিহাসঃ সন্তান সংখ্যা, প্রসব তারিখ, প্রসবের স্থান, প্রসব হতে কত সময় লেগেছিল, কাকে দিয়ে প্রসব করানো হয়েছিল, উচ্চ রক্তচাপ ছিল/আছে কি-না, অজ্ঞান/খিঁচুনি হয়েছিল কি-না, কোনো চিকিৎসা সেবা পেয়েছিল কি-না, প্রসবের ধরণ (স্বাভাবিক/সিজারিয়ান সেকশন), প্রসবোত্তর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছিল কি-না ইত্যাদি।

বর্তমানে কোনো জটিলতা আছে কি-না, যেমনঃ

  • যমজ গর্ভ
  • গর্ভস্থ শিশু ও প্ল্যাসেন্টা (গর্ভফুল) এর অবস্থান
  • উচ্চ রক্তচাপ
  • ডায়াবেটিস
  • জন্ডিস
  • হৃদরোগ
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে