শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে দুই মাস যাবত অজ্ঞান পিতৃহীন শিশু লিয়নের মায়ের অবিরাম কান্না ॥ অর্থের অভাবে হচ্ছে না চিকিৎসা

প্রকাশের সময়: ১২:৫১ অপরাহ্ণ - সোমবার | সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি॥ ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রায় দুই মাস যাবত অজ্ঞান অবস্থায় দিনকাটছে পিতৃহীন ১১ বছরের শিশু লিয়নের। অর্থের অভাবে ছেলের চিকিৎসা করাতে না পারার কষ্ট নিয়ে তার পাশে বসে হতাশায় অনবরত চোখের পানি ফেলছেন অসহায় মা।

ঠাকুরগাঁও পৌরশহরের সরকারপাড়া মহল্লার বাসিন্দা স্বামী পরিত্যাক্তা মুক্তারাণী দর্জির কাজ করে দুই শিশু সন্তানকে সাথে নিয়ে কোন রকমে দিনযাপন করছিলেন। বড় ছেলে লিয়ন সরকারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ালেখা করছিল। গত ১৮ জুলাই বিকেলে বাড়ির পাশে লিয়ন একটি উচু গাছের ডালে থাকা পাখির বাসা থেকে পড়ে যাওয়া একটি বাচ্চা ও একজোড়া পাখিকে অসহায় ভাবে চিৎকার করতে দেখে। এসময় এ ঘটনাটি অনেকে এড়িয়ে গেলেও শিশু লিয়নের মনে দয়া হয়। সে পাখির বাচ্চাটিকে সাথে নিয়ে তার বাসায় পৌছে দিতে গাছের মগডালে উঠতে শুরু করে। এক পর্যায়ে পা ফসকে লিয়ন গাছ থেকে নীচে পড়ে যায় এবং মাথায় প্রচন্ড আঘাত পেয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সেইযে জ্ঞান হারিয়েছে আর সে জ্ঞান ফিরে আসেনি। হাসপাতালের শয্যায় শুইয়ে থেকে মাঝে মাঝে হাত পা নারলেও অথবা ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থাকলেও সে কোন কথা বলতে এবং কিছু খেতে পারছে না। এ অবস্থায় তার নাকের ভিতর দিয়ে নল ঢুকিয়ে প্রতিদিন তরল খাবার ও ৭/৮শ’টাকার ঔষুধ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তার অসহায় মা অর্থের অভাবে না পারছেন ছেলের চিকিৎসার খরচ যোগাতে এবং না পারছেন চিকিৎসকের পরামর্শে ছেলেক ঢাকায় নিয়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করাতে। অসহায় মা ছেলের চিকিৎসার খরচের টাকার জন্য ইতোমধ্যে ঘরের ঘটিবাটি বিক্রি করা ছাড়াও আত্মীয়-স্বজন ও পাড়াপ্রতিবেশির কাছে অনেক ঋৃণ করে ফেলেছেন। এখন হাসপাতালে মা-ছেলের অসহায় অবস্থা দেখে কেউ সাহায্য সহযোগিতা করলে ছেলের ঔষুধ বা খাবার কিনতে পারেন নতুবা চোখের পানি ফেলে হাত পাতছেন লোকজনের কাছে। ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের শিশু কনসালটেন্ট ডা. শাহ্জাহান নেওয়াজ জানিয়েছেন, শিশু লিয়নকে ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে অপারেশনসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়ে তাকে সুস্থ্য করা সম্ভব। এমতাবস্থায় লিয়নের মা ছেলের জীবন বাঁচাতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহযোগিতার জন্য দুইহাত বাড়িয়েছেন। আর্থিক সহযোগিতা বা যোগাযোগ করতে পারেন এই মোবাইল নম্বরে -০১৭৮৪৯১৯৩২৩ (বিকাশ করা আছে)।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

উপরে