সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

ইউটিউবে যেভাবে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে ব্লু-ফিল্ম!

প্রকাশের সময়: ১:৩০ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

 

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

দ্রুতগতিতে বদলে যাচ্ছে বিশ্ব। বিশেষত প্রযুক্তির হাত ধরে একটু বেশি জোরেই কার্যত দৌড়চ্ছে বিশ্ববাসী। আর সেদিকে তাকিয়ে ইন্টারনেটে ভিডিও দেখা আর শেয়ারিংয়ের জন্য সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ইউটিউব। অভিযোগ হল, এই সাইটেই নাকি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে পর্ন ভিডিও। ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড মিরর জানিয়েছে, সুপারস্টার ভ্লগার (ভিডিও ব্লগার) আর মার্কিন লেট নাইট টক শো কারপুল কারাওকে’র নামে অনেক পর্নোগ্রাফিক কনটেন্ট আপলোড করা হচ্ছে ইউটিউবে।

পর্ন বা পাইরেটেড কনটেন্টে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে ইউটিউবের কড়া রুল রয়েছে। কিন্তু টরেন্টফ্রিক-এর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এখন অনেক আপলোডাকারী এই নিষেধাজ্ঞা মানছেন না। একশ্রেনির  ইউজাররা এই সব ভিডিও প্রকাশ্যে প্রদর্শনের পরিবর্তে প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য গুগল সার্ভারে রেখে তাদের নিজস্ব সার্ভারে তাদের সাইটের সরাসরি লিংক রেখে দেন। যেহেতু গুগল ভিডিও ডটকম ডোমেন সার্ভারে সংরক্ষিত থাকে, তাই এসব ভিডিও কখনও ইউটিউবে প্রকাশ করা হয় না। তাছাড়া ইউটিউবে কপিরাইট সংরক্ষণে কনটেন্ট আইডি নামের বাইপাস সিস্টেম রয়েছে। কিন্তু এখন এই ব্যবস্থায় যদি কোন পাইরেটেড ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায় এমনকি বন্ধও করে দেওয়া হয়, তার পরেও সপ্তাহ জুড়ে থেকে যাচ্ছে এমন ভিডিও।

ক্যালিফোর্নিয়ার অন্যতম পর্ন নির্মাতা ড্রিমরুমের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,  “ইউটিউব এখনও বড় রকমের গোলকধাঁধায় রয়েছে এখানে। নিজস্ব ভিডিও শেয়ারিং সেটিংয়ের সুবিধা নিয়ে কপিরাইট ভঙ্গকারীরা সুবিধা নিচ্ছে প্রতিনিয়ত। তারা ভিডিও আপলোড আর সংরক্ষণ করছে আর লাভ পেতে থার্ড-পার্টি ওয়েবসাইটে এগুলো ব্যবহারও করছে”। অন্যদিকে, গুগল এক প্রতিবেদনে দেখিয়েছে, তারা গুগল ভিডিও ডটকম থেকে ভিডিও সরিয়ে নেওয়ার জন্য প্রায় ৪৮,০০০ এরও বেশি অনুরোধ পেয়ে থাকেন।

উপরে