সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বিশেষায়িত হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিষয়ে রিটের শুনানি ১ অক্টোবর

প্রকাশের সময়: ১২:৩৮ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

 

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

দেশের বিশেষায়িত কোনো হাসপাতালে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার নির্দেশনা চেয়ে রিটের শুনানি মুলতবি করা হয়েছে। পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ১ অক্টোবর দিন ধার্য করেছে হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

শুনানির এক পর্যায়ে আদালত খালেদার আইনজীবীর কাছে জানতে চান, আপনারা কি রুল চান ? তখন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী বলেন, শুনানি শেষে আমরা আদালতের কাছে একটা অর্ডার চাই। তখন আদালত বলেন, এখনতো ভ্যাকেশন, কোর্ট অল্প সময় চলবে। আপনাদের এটা বিস্তারিত শুনতে গেলে অন্য আইনজীবীদের ম্যাটারগুলো শোনা হবে না। এ পর্যায়ে আদালতে অ্যাটর্নি জেনারেল প্রবেশ করেন। তখন খালেদার আরেক আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন আদালতকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মাই লর্ড,খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়টিতে অ্যাটর্নি জেনারেল বিরোধিতা না করলেই তো এখনই একটা অর্ডার দিতে পারেন। তখন আদালত বলেন, আপনারা যে প্রক্রিয়ায় বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা সুবিধা চাচ্ছেন, সেক্ষেত্রে তো বিরোধিতা করার সুযোগ রয়েছে। এরপর আদালত বলেন, আমার উভয়পক্ষের কাছ থেকে বিস্তারিত শুনব। এজন্য ১ অক্টোবর শুনানির জন্য রাখছি।’

এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর দেশের বিশেষায়িত কোনো হাসপাতালে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

রিটে কারা কর্তৃপক্ষকে প্রদক্ষেপ নেওয়ার জন্য নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর কারাগারে বিশেষ আদালতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিচার নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে আইন মন্ত্রণালয়।

চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও আর্থিক জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং প্রত্যেকের দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করে রায় ঘোষণা করেন আদালত। রায় ঘোষণার পর থেকেই খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন।

 

উপরে