বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ | ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

উকুন তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়

প্রকাশের সময়: ৪:৩০ পূর্বাহ্ণ - মঙ্গলবার | নভেম্বর ১৩, ২০১৮

 

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

পুরুষের তুলনায় নারীর মাথাতে চুলের ভাঁজে সবচেয়ে বেশি উকুনের সমস্যা হয়ে থাকে। উকুনের আক্রমণ সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। একটু পরপর মাথা চুলকায়, যেখানে-সেখানে গেলে ঘনিষ্ঠ মানুষরাও বিরক্তবোধ করেন। চুলের যত্ন নিয়ে, উকুননাশক সাবান, শ্যাম্পু ব্যবহার করেও কোনো উপকারিতা পাওয়া যায় না।

আসুন জেনে নেই কীভাবে তাড়াবেন মাথার উকুন।

নিমপাতা

নিমপাতা প্রাকৃতিক উপায়ে রোগ চিকিৎসা, ইউনানি, হোমিওপেথিক চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়। বহুগুণের এই নিমে আছে- অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিভাইরাস, এনালেজিক, অ্যান্টিপাইরেটিক, অ্যান্টিসেপ্টিক, অ্যান্টিমাইক্রবাল, অ্যান্টিডায়াবেটিক, অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং রক্ত বিশুদ্ধকরণ উপাদান। উকুন তাড়াতে ব্যবহার করতে পারেন নিম পাতা।এছাড়া রসুন ও মেয়োনেজের ব্যবহার করতে হবে।

২০১২ সালে প্যারাসাইটলজি নামের একটি জার্নালে বলা হয় যে, নিমের বীজ মাথার উকুন রোধ করতে উপকারী। নিম, মাথার স্কাল্প এর জ্বালাপোড়া ও চুলকানিও রোধ করে।

ব্যবহার

উকুননাশক চিরুনি

সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার হার্বাল যে কোনো শ্যাম্পু যাতে নিমের ব্যবহার রয়েছে তা দিয়ে মাথা ভালো করে ধুয়ে উকুননাশক চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়াতে হবে।

নিমপাতা বেটে মাথার স্কাল্পে লাগিয়ে নিন

নিমপাতা বেটে সরাসরি মাথার স্কাল্পে লাগিয়ে নিন। না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এরপর উকুননাশক চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন। উকুন পুরোপুরি রোধ না হওয়া পর্যন্ত প্রতি মাসে ২-৩ বার এই উপায় অনুসরণ করুন।

নিম অয়েল ম্যাসেজ

আপানার চুল ও স্কাল্পে নিম অয়েল ভালোমতো ম্যাসেজ করুন। এরপর উকুননাশক চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়িয়ে নিন উকুন রোধ করার জন্য। নিম অয়েল ম্যাসেজ করার পর ঘণ্টা খানেক মাথায় রাখতে পারেন বা সারারাতও রাখতে পারেন। পরের দিন সকালে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন।

রসুনের ব্যবহার

১০ কোয়া রসুন নিন। ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে বেটে নিন। এর সঙ্গে ২ চা চামচ লেবুর রস মেশান। পেস্টের মতো তৈরি করে মাথার ত্বকে ভালো করে ঘষে লাগিয়ে নিন। চুলের গোড়ার কোনো অংশ যেন বাদ না যায়! এভাবে ৩০ মিনিট পেস্টটি চুলে লাগিয়ে রাখুন। এরপর হালকা গরম পানিতে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহে ৩ দিন এই পদ্ধতিটি কাজে লাগালে উকুনের সমস্যা খুব দ্রুত দূর হয়ে যাবে।

মেয়োনেজের ব্যবহার

সুস্বাদু মেয়োনেজের মধ্যেই রয়েছে উকুন তাড়ানোর অসাধারণ ক্ষমতা। সব চুলে এবং মাথার ত্বকে ভালো করে মেয়োনেজ লাগিয়ে নিন। এরপর চুল ভালো করে শাওয়ার ক্যাপ বা অন্য কিছু দিয়ে বেধে ঘুমুতে চলে যান। সকালে উঠে ভিনেগার মেশানো পানি দিয়ে ভালো করে চুল ধুয়ে নিন। এরপর স্বাভাবিকভাবে চুলে শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহার করে চুল ধুয়ে নিন। চুল ধোয়ার সময় আলতো করে চিরুনি চালিয়ে দিন। এই পদ্ধতিতে উকুন তো দূর হবেই সেই সঙ্গে চুলের সঙ্গে আটকে থাকা উকুনের ডিমও নিমেষে দূর হয়ে যাবে। সপ্তাহে মাত্র ২ বার ব্যবহারেই ভালো ফলাফল পেয়ে যাবেন।

উপরে