রবিবার, ২১ জুলাই, ২০১৯ | ৬ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

ঢাবি উপাচার্যের আশ্বাসে ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন স্থগিত

প্রকাশের সময়: ৪:২৯ অপরাহ্ণ - সোমবার | জুলাই ৮, ২০১৯

কারেন্টনিউজ ডটকম ডটবিডি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের আশ্বাসে রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত করেছেন।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে সাত কলেজের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে উপাচার্য আশ্বস্ত করলে আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেন তারা।
সেশনজট নিরসনে একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশ, ক্রাস প্রোগ্রাম চালুসহ পাঁচ দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা।

আজ সকাল ১০টায় ঢাকা কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে নীলক্ষেতে অবস্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণের সামনে গিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের পক্ষ থেকে আন্দোলনকারীদের উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দেয়া হয়।
পরে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদল উপাচার্যের কার্যালয়ে গিয়ে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয়। এ সময় উপাচার্য তাদের আশ্বস্ত করলে তারা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করে বলেছেন, ৯০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশসহ সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তবে এটি কার্যকর হতে ছয় মাস লাগবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তিনি আশ্বস্ত করেছেন, যেসব শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছেন, তারা নিজ কলেজে এ বিষয়ে আবেদন করতে পারবেন।

উপাচার্য আরও জানিয়েছেন, সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। সাত কলেজের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কলেজগুলোর শিক্ষকরাই প্রণয়ন করবেন, তাদের একাডেমিক সনদেও কোনো পরিবর্তন আনা হবে না। কলেজগুলোর জন্য শিগগিরই একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হবে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- একসঙ্গে পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ত্রুটিমুক্ত ফল প্রকাশসহ একই বর্ষের সব বিভাগের ফল একত্রে প্রকাশ, গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশ ও খাতা পুনর্মূল্যায়ন, সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ, প্রতিটি বিভাগে মাসে দুই দিন করে অধিভুক্ত সাত কলেজে মোট ১৪ দিন ঢাবি শিক্ষকদের ক্লাস নেয়া এবং সেশনজট নিরসনে একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাস প্রোগ্রাম চালু।

উপরে