রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

বন্ধ জাবি খুলছে বৃহস্পতিবার

প্রকাশের সময়: ৯:৫৩ অপরাহ্ণ - বুধবার | ডিসেম্বর ৪, ২০১৯

currentnews

অনির্দিষ্টকালের জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার একমাস পর বৃহস্পতিবার থেকে আবাসিক হলগুলো খুলে দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এছাড়া আগামী রোববার থেকে যথারীতি ক্লাস-পরীক্ষা শুরু হবে।

বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের কাউন্সিল কক্ষে অনুষ্ঠিত জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের সদস্য সচিব ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘সিন্ডিকেটের সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে হল খোলার সিদ্ধান্ত হয়। সিন্ডিকেটের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক কার্যক্রম সচল রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।’

উল্লে­খ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে উপাচার্যের ‘মধ্যস্থতায়’ ছাত্রলীগকে বড় অঙ্কের আর্থিক সুবিধা দেয়ার অভিযোগের তদন্তের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ২৩ আগস্ট শুরু হওয়া এ আন্দোলন ১৮ সেপ্টেম্বর উপাচার্যের পদত্যাগ দাবির আন্দোলনে রূপ নেয়। বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে পদত্যাগ না করায় ২ অক্টোবর থেকে আন্দোলন মোড় নেয় উপাচার্যের অপসারণ দাবির আন্দোলনে। ১০ দিন উপাচার্যের কার্যালয় অবরুদ্ধ রাখার পর ৪ নভেম্বর সন্ধ্যা সাতটা থেকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন আন্দোলনকারীরা। পরদিন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তাদের পিটিয়ে সরিয়ে দেন। সেদিনই জরুরি সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা-কার্যক্রম চালু করার দাবিতে ২০, ২৬ ও ২৮ নভেম্বর উপাচার্য বরাবর তিন দফায় আবেদন জানান একদল শিক্ষার্থী। ১৪ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যপন্থী শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্ল্যাটফর্ম ‘অন্যায়ের বিরুদ্ধে ও উন্নয়নের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর’ হল খুলে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় সচল করার দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ হল খোলাসহ অন্যান্য দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছেন।

সর্বশেষ মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে হল খুলে ক্লাস-পরীক্ষা সচল করার দাবিতে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দেয়া হয়। সেদিন বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কার্যালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় সচল করার বিষয়ে জরুরি সিন্ডিকেট সভার কথা জানানো হয়।

উপরে