শনিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২০ | ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

প্রেমিকার বাবা-মাকে দায়ী করে স্টামফোর্ড ছাত্রের আত্মহত্যার অভিযোগ

প্রকাশের সময়: ১১:২২ পূর্বাহ্ণ - সোমবার | ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

currentnews

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রেমিকার বাবা-মাকে দায়ী করে স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে।

রাজধানীর ধোলাইখালের একটি বাসা থেকে সায়েম হাসান শান্ত (২১) নামে ওই শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ধানমণ্ডি শাখার শিক্ষার্থী শান্ত বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান ছিলেন।

স্বজনরা বলছেন, রবিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে নিজ কক্ষে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন শান্ত। এর আগে প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নিয়ে মামলা দিয়ে হয়রানির জন্য প্রেমিকার মা-বাবাকে দায়ী করে ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন তিনি।

সূত্রাপুর থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এটি আত্মহত্যা কিনা তা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ফেসবুক স্ট্যাটাসের বিষয়ে ওসি বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে ফেসবুক স্ট্যাটাসের বিষয়টি জানানো হয়েছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

শান্তর বাবা রিপন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘শান্তর সঙ্গে পুরান ঢাকার লক্ষ্মীবাজার এলাকার একটি মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত ২৬ নভেম্বর মেয়েটি আমার বাড়িতে চলে আসে। এরপর তার বাবাসহ স্বজনরা নিতে এলেও মেয়েটি যায়নি। তখন মেয়েটিকে মারধর করে চলে যায় তারা। এরপর মেয়েটির বাবা কোতোয়ালি থানায় অপহরণ মামলা করলে শান্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কয়েক দিন জেল খাটার পর গত শুক্রবার ছাড়া পায় শান্ত। এরই মধ্যে মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যায় তার মা-বাবা। শান্ত ছাড়া পাওয়ার পর এলাকায় অনেকেই তাকে এ নিয়ে অপমানজনক কথা বলত। এই ক্ষোভে সন্ধ্যায় নিজ রুমে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে।’

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

উপরে