শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০ | ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

কমলগঞ্জ পৌরসভা গঠনের ২০ বছর পর সড়কে বাতি জ্বলছে

প্রকাশের সময়: ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ - শনিবার | সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

currentnews

মোঃ তোফাজ্জল হোসাইন, কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: পৌরসভা গঠনের ২০ বছর পর প্রথমবার সড়ক বাতিতে আলোকিত মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌর এলাকা। বর্তমান মেয়র জুয়েল আহমেদ এর বিগত সাড়ে ৪ বছরে পৌর এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত করার পর জনগনকে দেয়া নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণ এবং রাতের বেলা পৌর এলাকায় অপরাধ দমনে ৯ টি ওয়ার্ডের প্রধান সড়ক গুলোতে সড়ক বাতি জ্বালিয়ে আলোকিত করলেন কমলগঞ্জ পৌর এলাকা। প্রতি ৫০ ফুট পরপর এ সড়ক বাতি থাকার ফলে রাতের বেলা কোন দুর্ঘটনা ও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা এখন আর নেই বললেই চলে।
ফলে পৌরসভা প্রতিষ্ঠার ২০ বছর পর ভূতুড়ে অন্ধকার সড়ক গুলো সড়ক বাতিতে আলোকিত হলো।
পৌর এলাকার ভানুগাছ বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী আলাপকালে জানান, বাজারে ব্যবসা করে দোকানপাট বন্ধ ঘরে বাড়ি ফেরার পথে এখন আর তেমন সমস্যায় পড়তে হবেনা। সড়কে বাতি থাকার ফলে আমরা যারা রাতের বেলা ফিরি তারা নির্বিঘ্নে রাস্তায় চলাচল করতে পারবো।
পরিবহনশ্রমিকরা জানান, সড়কে বাতি জ্বালানোর ফলে আশা করি রাস্তায় অপ্রীতিকর ঘটনা এখন আর ঘটবে না।
পৌর নাগরিকগণের সাথে আলাপ করলে তারা জানান, বিগত তিন নির্বাচনের নির্বাচিত কোনো মেয়রই সড়কে সড়ক বাতি লাগানোর কথা দিয়েও কথা রাখতে পারেননি। কিন্তু, বর্তমান মেয়র জুয়েল আহমেদ প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে সক্ষম হয়েছেন।

বর্তমান মেয়র জুয়েল আহমদ নির্বাচিত হওয়ার পরে প্রাথমিক পর্যায়ে গত বছর এ পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে কিছুসংখ্যক সড়কবাতি স্থাপন করা হলেও বর্তমানে সারা পৌর শহর জুড়ে সড়ক বাতি স্থাপন করে গত ৩০ আগস্ট সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় সংসদ সদস্য, সাবেক চীফ হুইপ, আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ ড.মো: আব্দুস শহীদ এম.পি এক সুইচে পুরো পৌর এলাকার সড়ক বাতির শুভ উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর হতেই এক সুইচে সন্ধ্যা থেকে ভোর পর্যন্ত আলো ছড়াচ্ছে এ সড়ক বাতি গুলো।

এবিষয়ে জানতে চাইলে মেয়র জুয়েল আহমেদ ‘দৈনিক তৃতীয় মাত্রাকে’ জানান এই প্রথমবারের মতো পৌর শহরের প্রধান সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে নিজস্ব খুঁটি স্থাপনের মাধ্যমে সড়কবাতি লাগানো হয়েছে। এছাড়াও পৌর এলাকার যে স্থানগুলোতে বৈদ্যুতিক সড়ক বাতি স্থাপন করা সম্ভব হয়নি সে সমস্ত এলাকায় বিদ্যুৎ ও সৌর প্যানেল স্থাপনের মাধ্যমে রাতের বেলায় পৌর নাগরিকের নির্বিঘ্নে চলাফেরার জন্য আলো ছড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, বিগত নির্বাচনের সময় ভোটারদের কাছে আমি যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তার সিংহভাগই পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি এবং আগামিতে শহরের সকল ছোট সড়কগুলোতেও সড়কবাতি লাগানোর চিন্তাধারা রয়েছে।

উপরে