শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০ | ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

জাতিসংঘের নামে ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশের সময়: ১২:২৪ অপরাহ্ণ - সোমবার | সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

currentnews

ইরানের বিরুদ্ধে একতরফাভাবে জাতিসংঘের সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও শনিবার এ ঘোষণা দেন। চীন-রাশিয়া তো বটেই, ওয়াশিংটনের ইউরোপীয় মিত্ররাও এ নিষেধাজ্ঞাকে ‘বেআইনি’ বলে উল্লেখ করেছে। এতে যুক্তরাষ্ট্র আরও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ল বলে জানিয়েছেন কূটনীতিকরা। এমন ‘বেপরোয়া পদক্ষেপ’ নেওয়ায় বিশ্ববাসীকে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে জোরালো অবস্থান নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইরান।

পম্পেও বলেছেন, ইরানের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করছে যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৮টা থেকে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আরও এক ধাপ এগিয়ে বলেছেন, এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোনো দেশ ইরানের সঙ্গে বাণিজ্য করলে তাদের কঠোর পরিণতি ভোগ করতে হবে। এসব দেশকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজার এবং অর্থনৈতিক ব্যবস্থা থেকে বহিস্কারের হুমকিও দিয়েছেন ট্রাম্প। জাতিসংঘের নামে যুক্তরাষ্ট্র এ নিষেধাজ্ঞা দিলেও তাতে খোদ নিরাপত্তা পরিষদের দেশগুলোরই সম্মতি নেই। উল্টো ওই দেশগুলোকে নিষেধাজ্ঞা মেনে চলতে বলছে ওয়াশিংটন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দেড় মাসেরও কম সময় বাকি রয়েছে। ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার পদক্ষেপকে ট্রাম্পের নির্বাচনী রাজনীতির অংশ হিসেবে দেখা হচ্ছে। আগামীকাল মঙ্গলবার জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে ভাষণ দেবেন ট্রাম্প। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানে ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের বিষয়ে বিস্তারিত বলবেন তিনি। তবে ওয়াশিংটনের একতরফা এ নিষেধাজ্ঞার পদক্ষেপ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের চার স্থায়ী সদস্য চীন, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স এবং ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তিতে থাকা জার্মানিকে ভীষণভাবে বিক্ষুব্ধ করেছে।

শুক্রবার এক যৌথ বিবৃতিতে যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানি বলেছে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের পদক্ষেপ আইনিভাবে মূল্যহীন।’ এই তিনটি দেশই ওয়াশিংটনের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত। রোববার যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণার তীব্র নিন্দা জানিয়ে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘অবৈধ নিষেধাজ্ঞা কোনোভাবেই আন্তর্জাতিক আইনে পরিণত হতে পারে না।’

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে তিনি অপারগ। কারণ এতে পরিস্থিতি আরও অনিশ্চিত হয়ে উঠতে পারে।’ ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, ‘সব পক্ষকে এড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র একতরফাভাবে তেহরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে না।’ রোববার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওয়াশিংটনের বেপরোয়া পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এক হতে আহ্বান জানিয়েছে। ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, চীন, রাশিয়া ও জার্মানি। এরপর ইরানের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়। কিন্তু ২০১৮ সালে চুক্তি থেকে একতরফাভাবে বেরিয়ে যান ট্রাম্প। বাকি দেশগুলো চুক্তিতে থেকে যায়। সূত্র :এএফপি ও রয়টার্স।

উপরে