শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০ | ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

পুঁজিবাজারে গণশুনানি শুরু

প্রকাশের সময়: ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ - মঙ্গলবার | সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০

currentnews

পুঁজিবাজারে অনলাইনে শেয়ার লেনদেনে সমস্যা নিয়ে গণশুনানি শুরু হয়েছে। বাজারের সুশাসন নিশ্চিত করতে সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) প্রথমবারের মতো এ হেয়ারিং হয়।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) যৌথভাবে এ আয়োজন করে। প্রতিষ্ঠান দুটির কর্মকর্তারা গণশুনানিতে অংশ নেওয়া প্রতিনিধিদের মতামত শুনেছেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএসইসির কমিশনার আব্দুল হালিম বলেন, সুশাসনের অংশ হিসেবে পাবলিক হেয়ারিংয়ের যাত্রা শুরু করেছে। বাজার নিয়ন্ত্রণের জন্য আইনের প্রয়োগ করে থাকে বিএসইসি। বর্তমান কমিশন মনে করে, সুশাসনে স্টেকহোল্ডারদের ভূমিকা রয়েছে।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, প্রথমবারের মতো পাবলিক হেয়ারিং শুরু করেছি। আগামীতে এর ধারাবাহিকতা থাকবে। এই পাবলিক হেয়ারিং অর্থ যে যেই খাতে থাকে, সেই খাতে কোনো প্রতিবন্ধকতা আছে কিনা, তাদের কিছু জানার বিষয় আছে কিনা, তাদের কোনো মতামত আছে কিনা, সেটাই তুলে ধরা। আজ অনলাইনে পুঁজিবাজারে লেনদেনে সমস্যা ও সম্ভাবনার বিষয় নিয়ে পাবলিক হেয়ারিংয়ের আয়োজন করা হয়েছে। এখানে অনলাইন লেনদেন বলতে বিনিয়োগকারীর নিজের ক্রয়-বিক্রয়াদেশ দাখিলকে বোঝানো হয়েছে। এই পদ্ধতিটি ডিএসইতে ২০১৬ সালের মার্চে চালু হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে প্রায় ১০ শতাংশ মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেন হয়। এটি করোনাভাইরাসের মধ্যে এখন অনলাইন লেনদেন সহায়ক হয়েছে। তবে সারাবিশ্বে অনলাইনে লেনদেন বেশি হয়।

তিনি বলেন, আমাদের কমিশনের চেয়ারম্যান ফরেন আউটলেট খোলার কথা বলেছেন। এটা করতে গেলে ইন্টারনেটভিত্তিক লেনদেনের দরকার পড়বে। এটি করতে পারলে লেনদেন অনেক বেড়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে ইন্টারনেটভিত্তিক ট্রেডিংয়ে নানা সমস্যা তুলে ধরেন অংশগ্রহণকারীরা। আলোচ্য সমস্যার সমাধান নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) মোহাম্মদ রেজাউল করিম, ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ছানাউল হক এবং প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা মো. জিয়াউল করিম৷

উপরে