মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১ | ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Logo
Print

১০০ কোটি ডোজ টিকা পাবে দরিদ্র দেশগুলো

প্রকাশের সময়: ২:০৯ অপরাহ্ণ - সোমবার | জুন ১৪, ২০২১

currentnews

গণতান্ত্রিক বিশ্বের সাত ধনী দেশের জোট জি-৭ দরিদ্র দেশগুলোর জন্য আগামী বছরের মধ্যে অনুদান হিসেবে করোনা প্রতিরোধী ১০০ কোটি ডোজ টিকা দেবে। একই সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্বন নিঃসরণ হ্রাসে ১০০ কোটি ডলার ব্যয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা। ইংল্যান্ডের কারবিস বে অবকাশকেন্দ্রে জোটের তিন দিনব্যাপী সম্মেলন শেষে গতকাল রোববার এ ঘোষণা দেওয়া হয়। সম্মেলনের চেয়ার-দেশ হিসেবে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সম্মেলনের সিদ্ধান্ত ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তুলে ধরেন। তবে অন্য নেতারাও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। খবর বিবিসি, রয়টার্স ও এএফপির।

করোনা মহামারির মধ্যে এবারের জি-৭ সম্মেলন বিশ্ববাসীর বিশেষ আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল। বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক বিপর্যয়, মানবাধিকার ও মানব উন্নয়ন, মহামারি ও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রচেষ্টার মধ্যে চীনের বৈশ্বিক প্রভাব বিস্তারের মতো ইস্যুগুলো জোট নেতারা আলোচনা করেছেন। সম্মেলন শেষে জোটের পক্ষ থেকে এসব বিষয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত ও পরিকল্পনাও ঘোষণা করেছেন জনসন।

সম্মেলন শেষে ২৫ পৃষ্ঠার একটি ঘোষণাপত্র প্রকাশ করা হয়। যেখানে বলা হয়, বিশ্বের চার কোটি শিশুকে স্কুলমুখী করতে বিশ্বজুড়ে কাজ করবে জি-৭ সদস্যরা। বিশ্বের সব শিশুকে স্কুলে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে জোটের পক্ষ থেকে বৈশ্বিক অংশীদারিত্বের অংশ হিসেবে ২৭০ কোটি ডলার সহায়তা দেওয়া হবে। এ ছাড়া করোনার উৎস খুঁজে বের করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নেতৃত্বেই নতুন করে গবেষণা শুরু করার বিষয়ে সম্মত হয়েছেন নেতারা।

জি-৭ নেতাদের সবাই এবার সম্মেলনে যোগ দেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাক্রোন, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা ও ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাগি কারবিস বের অবকাশকেন্দ্রে হওয়া সম্মেলনে অংশ নিয়ে একাধিক বৈঠক করেছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নও (ইইউ) রয়েছে এই জোটে। ইইউ নেতাসহ এবার ভারত ও অস্ট্রেলিয়াকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে জি-৭ সম্মেলন উপলক্ষে প্রথম বিদেশ সফরে রয়েছেন জো বাইডেন। সম্মেলনের কয়েকটি বৈঠকে চীন ও রাশিয়ার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন তিনি। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে দরিদ্র দেশগুলোকে টিকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করে বাইডেন বলেন, শেল কোম্পানি, অর্থ পাচার, সাইবার হামলা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে একযোগে কাজ করবে যুক্তরাষ্ট্র। এসব কাজে যুক্ত অপরাধীদের যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দেবে, তাদেরও জবাবদিহির আওতায় আনা হবে। বৈশ্বিক হুমকি মোকাবিলার একমাত্র উপায় হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র একযোগে কাজ করার লক্ষ্যে সম্মত। সম্মেলন থেকে নেওয়া সিদ্ধান্ত বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বাইডেন বলেন, বৈশ্বিক নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র আবার ফিরে এসেছে।

এদিকে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ উদ্যোগের পাল্টা পদপেক্ষ হিসেবে বিশ্বজুড়ে অবকাঠামো খাতে বিশাল বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জি-৭ নেতারা। এ জোটের নতুন পরিকল্পনাকে ‘বিল্ড ব্যাক বেটার ওয়ার্ল্ড’ (বি৩ডব্লিউ) বলা হচ্ছে। চীনের প্রতি অংশীদারিত্বমূলক বৈশ্বিক ব্যবস্থা গড়ে তুলতেও আহ্বান জানিয়েছেন জোট নেতারা। তবে গতকাল বেইজিং সাফ জানিয়ে দিয়েছে- দুনিয়ার ওপর গুটিকয়েক দেশের ছড়ি ঘোরানোর দিন আগেই শেষ হয়ে গেছে।

আর্কাইভ

বিজ্ঞাপন

https://www.revenuecpmnetwork.com/hsbkfw8q51?key=6336343637613361393064313632333634613266336230363830336163386332

উপরে